fbpx
কলকাতাহেডলাইন

চেয়ারপার্সন নির্বাচিত হয়েই নেতাজি ইন্ডোর থেকে বিজেপিকে ম্যারাথন আক্রমণ মমতার, রাজ্যপালকে ‘ঘোড়ার পাল’ বলে কটাক্ষ

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্কঃ প্রত্যাশা ছিলই। তৃণমূলের সাংগঠিক নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারপার্সন নির্বাচিত হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রিটানিং অফিসার পার্থ চট্টোপাধ্যায় এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম চেয়ারপার্সন হিসেবে ঘোষণা করেন। আর চেয়ারপার্সন নির্বাচনী মঞ্চ থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে ম্যারাথন আক্রমণ শুরু করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই আক্রমণে পেগাসাস থেকে শুরু করে রাজ্যপাল, সিবিআই, ইডি কিছুই বাদ পড়ল না।

নেতাজি ইন্ডোরের মঞ্চ থেকে বিজেপি হটাওয়ের ডাক দিয়ে মমতা বলেন, আমরা চেয়েছিলাম, দেশ থেকে বিজেপিকে হঠাতে সবাই একযোগে আসুন। যদি কেউ না আসে, তাহলে কবিগুরুই আমার প্রেরণা। ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে, তাহলে একলা চলার নীতি নিয়ে চলব।’

এদিন রাজ্যপালকে ‘ঘোড়ার পাল’ বলে কটাক্ষ করে মমতা। তিনি বলেন, রাজ্য শাসন করতে একটা ঘোড়ার পালকে পাঠিয়েছে। এদিন তিনি বলেন, মা ক্যান্টিনে ডিমের ঝোল ভাত কেন খাওয়াই সে কৈফিয়ৎ দিতে হবে ওঁনাকে? উনি সবজান্তা। সব সময় আমাকে গালাগাল দেয়। ঘরে বসে দূরবীন লাগিয়ে দেখছে, বাংলায় কোথায় খুন খারাপি হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর অনুমতি ছাড়া কোনও কাজ করা যায় না। যখন তখন মুখ্যসচিবকে ডেকে পাঠাচ্ছে।

মুখ্যমন্ত্রীর আক্রমণের হাত থেকে বাদ যায়নি পদ্মশ্রী থেকে পদ্মভূষণ। এদিন তিনি বলেন, সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়কে অপমান করা হয়েছে। সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়ের বিকল্প কি  কিছু হবে? রাশিদের বাড়িতেও বিজেপির দুজন প্রতিনিধি  গিয়েছিলেন। ‘পদ্মভূষণ নিয়ে রাজনীতির দূষণ’।

মমতা বলেন, ত্রিপুরায় আমাদের হেনস্থা করা হয়েছে। গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। কর্মীদের মারধর করা হয়েছে। মনে রাখবেন তৃণমূল বিবেকানন্দের আদর্শে বিশ্বাসী। তাই তৃণমূল কিছুতেই মাথা ঝোঁকাবে না’।

পেগাসাস ইস্যুতেও মমতা বলেন, ফোনে কথা বললেই পেগাসাস। এর জাস্টিস দরকার। মানুষের কোনও অধিকার নেই ফোনে কথা বলার? অভিষেক, পিকের সবার ফোন ট্যাপ করা হয়েছে।

মমতা বলেন, সিবিআই আর ইডি হল বিজেপির রত্ন। মানুষ কোথায় যাবে? খালি কোভিডের দোহাই দিচ্ছে। রেল থেকে সেল সব বেচে দিচ্ছে। নোটবন্দির পালটা হল আমাদের লক্ষ্মীর ভাণ্ডার। আমাদের প্রকল্পে খুশি হয়ে ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্ক আমাদের প্রকল্পে টাকা দিয়েছে।

এদিন সভা থেকে কংগ্রেসকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মমতা। এদিন তিনি বলেন, মেঘালয়, চন্ডীগড়ে বিজেপির হয়ে ভোট দিচ্ছে কংগ্রেস।

বাদ পড়ল না বাজেটও। তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, একটা বাজেট হয়েছে। হিরের দাম কমছে। মানুষ চাল, ডাল চায় হিরের দাম কমিয়ে কি হবে? মানুষ কি হিরে চচ্চড়ি বানিয়ে খাবে? ওরা নিজেরা হিরের ঘন্ট বানিয়ে খাক।

এদিন সভা শেষের আগে মমতা বলেন, দুর্গাপুজোকে সম্মান জানিয়েছে ইউনেস্কো। দুর্গাপুজোর একমাস আগে থেকে মিছিল চলবে। সংখ্যালঘু মহিলারাও অংশগ্রহণ করবে। গোটা দেশ সেদিন শঙ্খ, উলুধ্বনি দেবে।

মমতা তীব্র কটাক্ষ করে বলেন, বিজেপি হল ‘চু কিত কিতের দল’, দুর্যোধন, দুঃশাসন বেঁচে থাকলে এদের অপকর্ম দেখলে আজ ডুবে মরত। একটা দুষ্টু দুষ্টু খেলা চলছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close