fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মমতা আগুন জ্বালাতে চাইছে, বাংলায় যদুবংশ ধ্বংস হতে চলছে: রাজু ব্যানার্জী

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: ‘পশ্চিবঙ্গে গুন্ডারাজ চলছে। গণতন্ত্র নেই। মমতা ব্যানার্জী অশান্ত করতে চাইছে। আগুন জ্বালাতে চাইছে। আর বাংলার মানুষ গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে। তাই বাংলায় পরিবর্তনের জন্য বিজেপিকে স্বতঃস্ফুর্ত সমর্থন করছে। বাংলায় যদুবংশ ধ্বংস হতে চলেছে।’ মঙ্গলবার দুর্গাপুরে দলীয়কর্মী খুনে এডিসিপি ঘেরাওয়ে এসে তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীকে এভাবেই আক্রমন করলেন বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি রাজু ব্যানার্জী। পাশাপাশি দলীয় কর্মী খুনে তৃণমূলের পাল্টা জবাবে তিনি বলেন, রাজনীতি করতে আসিনি, পরিবারকে সমবেদনা জানাতে এসেছি।’
উল্লেখ্য, সোমবার সকালে দুর্গাপুর-১ নং ওয়ার্ডের পারুলিয়ার বিজেপিকর্মী সরূপ শো’ র রহস্যজনক মৃতদেহ উদ্ধার হয় লাউদোহার প্রতাপপুরে। ঘটনায় খুনের অভিযোগ তুলে প্রতিবাদে সরব হয়েছে বিজেপি। মঙ্গলবার দুর্গাপুরে এডিসিপি অফিস ঘেরাও করে বিজেপি। এদিন দুর্গাপুর হাউস থেকে মিছিল করে এডিসিপির অফিস ঘেরাও করে। গেটের সামনে ক্ষনিকের ধর্নায় বসে পড়ে। তারপর সেখান থেকে নিহত বিজেপিকর্মী সরূপ শো’য়ের বাড়ীতে যান বিজেপি নেতৃত্ব। ছিলেন, বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি রাজু ব্যানার্জী, বিজেপির আসানসোল সাংগঠনিক জেলা সভাপতি লক্ষন ঘড়ুই প্রমুখ। সরূপ শো’য়ের মা’ কে সমবেদনা জানান। যদিও রাজনীতির প্রশ্ন কার্যত নিরব ছিল সরূপ শো’ য়ের মা ও গোটা পরিবার। তার মা সুলোচনা দেবী জানান,” ছেলে মানসিক বিকারগ্রস্ত ছিল। ছেলে’ কে তো আর ফিরে পাবো না।”
পাশাপাশি তৃণমূল নেতৃত্ব জানিয়েছে, বিজেপি নোংরা রাজনীতি করছে। এদিন দুর্গাপুরে বিজেপির রাজ্য সহ সভাপতি রাজু ব্যানার্জী বলেন,” ছেলে হারিয়েছে। তাঁর ছেলেকে ফেরানো যাবে না। তবে যারা তাঁর ছেলেকে কেড়েছে, তাদের শাস্তি চাই। মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করতে আসিনি। তার পরিবারে সমবেদনা জানাতে এসেছি। ক্ষমতায় আসার পর তদন্ত হবে। দোষীরা শাস্তি পাবে।’ তিনি আরও বলেন,” ঘটনায় পুলিশ স্বতঃপ্রনোদিত মামলা করলে তৃণমূলের গুন্ডারা ধরা পড়বে। তাই মামলা করেনি। মৃতের পরিবারকে ভয় দেখাচ্ছে। পুলিশ চাইছে ঘটনার ধামাচাপা দিতে। তাই পুলিশ প্রশাসনের ওপর ভরসা নেই। সিবিআই তদন্তের দাবী জানাচ্ছি।”
প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার বাংলার রাজনীতির আঙ্গিনায় দিনটা যথেষ্ট তাৎপর্যপুর্ন। একদিকে বিহার বিধানসভার ফলাফল। এনডিএ বনাম মহাজোটের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। যে দিকে মুখিয়ে বাংলার রাজনীতিবিদরা। আবার অন্যদিক নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারির নেতৃত্ব ভুমিরক্ষা কমিটির নন্দীগ্রাম দিবস। কোন পথে শুভেন্দু তার ইঙ্গিত এদিনের সভা থেকেই বার্তা বহন করে। সেসব প্রসঙ্গে রাজু ব্যানার্জী বলেন,”  মমতা ব্যানার্জী গুন্ডারাজ, একনায়কতন্ত্রের, খুনের রাজনীতির যে সিস্টেমে চলছে। শুভেন্দু অধিকারির জায়গা নয়। আমরা চাইব তিনি সঠিক জায়গায় আসুক।”
বিহারের ফলাফল প্রসঙ্গে তিনি বলেন,” এক্সিট পোলের ওপর নির্ভর করি না। কারন মানুষের সঙ্গে থাকি। নরেন্দ্র মোদী ও নিতিশ কুমারের নেতৃত্বে যেভাবে সরকার চালিয়েছে। উন্নয়ন করছে। জাতপাতের রাজনীতিকে উপড়ে ফেলে দিয়েছে। বিহারের মানুষ দু হাত তুলে আশির্বাদ করবে।” বিহারের ফলাফলের প্রসঙ্গ টেনে তিনি আরও বলেন,” পশ্চিবঙ্গে গুন্ডারাজ চলছে। গণতন্ত্র নেই। মমতা ব্যানার্জী অশান্ত করতে চাইছে। আগুন জ্বালাতে চাইছে। আর বাংলার মানুষ গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে। তাই বাংলায় পরিবর্তনের জন্য বিজেপিকে স্বতঃস্ফুর্ত সমর্থন করছে। আর বাংলায় যদুবংশ ধ্বংস হতে চলেছে।”

Related Articles

Back to top button
Close