fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

১ নভেম্বর থেকে খুলছে মঙ্গল পাড়া জুটমিল: সাংসদ লকেট চ্যাটার্জী

বাবলু বন্দ্যোপাধ্যায়, কোলাঘাট: রাজ্য সরকারের অনমনীয় মনোভাবের জন্য একটার পর একটা জুট মিল বন্ধ। আজও একটি জুট মিল বন্ধ হয়ে গেল। দেড় হাজার শ্রমিকের এই পুজোর সময় তাদের বউ বাচ্চাদের আনন্দকে মাটি করে দিল। এমনই বললেন লকেট চ্যাটার্জী। মঙ্গলপাড়া জুটমিল খুলছে আগামী পয়লা নভেম্বর থেকে। কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে চুক্তিতে সই হয়েছে। যে সমস্ত জুট মিলগুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ২১ সালের নির্বাচনের পর বিজেপি ক্ষমতায় এসে প্রত্যেকটি জুটমিল শ্রমিকদের স্বার্থে খোলার বন্দোবস্ত করবেন বলে জানালেন হুগলির সংসদ লকেট চ্যাটার্জী।

 

 

বৃহস্পতিবার  কোলাঘাটে দলের গুরুত্বপূর্ণ এক বৈঠকে উপস্থিত  থাকার পর বাহিরে  সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলা প্রসঙ্গে রাজ্যের রাজনৈতিক হাল হকিকতের নানা প্রসঙ্গ টেনে বলেন কোথাও দেখানো হচ্ছে লুডু খেলার সাপের মুখে বিজেপি পড়ে  সাপের লেজে ঠেকবে। দেখানো হচ্ছে মই-এর প্রথমে তৃণমূল একেবারে উচ্চপর্যায়ে উঠবে। মানুষের জনতার রায় ১৯ সালে দিয়েছে ওই মইয়ে মতো ওঠার মতো শক্তি আর নেই। ওই মই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়বে। তিনি বলেন, হুগলি জেলার তৃণমূল গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ভরপুর, কাটমানিতে ভরে গেছে। তাই এই সংকটজনক অবস্থা থেকে দিদি নিজে দেখবে বলে বলছে। এতে লাভ হবে না, বিজেপি আগামী বিধানসভায় প্রত্যেকটি আসন  পাবে।

 

টিটাগড়ে মনীশ শুক্লা খুনের বিষয়ে বলেন তৃণমূল মিছিল করে জানান দিচ্ছে  বিজেপি করলে টিটাগড়ের মতো অবস্থা হবে। আসলে ব্যারাকপুরে অর্জুন সিংকে তৃণমূল ভয় পেয়েছে। তাই এসব মিছিল। ক্লাবগুলিকে টাকা দেওয়া প্রসঙ্গে বলেন, টাকা দেওয়া মানে ধরে নিতে পারেন ক্লাব গুলিকে বোমার  কারখানা বানান, সদ্য বেলেঘাটা ক্লাবে বিস্ফোরণই  তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ। নানা প্রশ্নের মাঝে পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেন ২১ সালের নির্বাচনে বাংলাকে ‘সোনার বাংলা’ গড়ে সাধারণ মানুষের কাছে ১০ বছরের জ্বালা-যন্ত্রণাকে প্রশমিত করবেন তৃণমূলের হাত থেকে।

Related Articles

Back to top button
Close