fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

হিন্দু শরনার্থীদের স্বার্থে সিএএ কবে লাগু হবে প্রশ্ন সুবোধের

রক্তিম দাশ, কলকাতা: বিজেপি সাংসদ তথা অলইন্ডিয়া মতুয়া মহাসংঘের সংঘাধিপতি শান্তনু ঠাকুরে পর এবার সিএএ কবে দেশ জুড়ে লাগু হবে সে প্রশ্ন তুললেন বাঙালি উদ্বাস্তু আন্দোলনের সর্বভারতীয় নেতা ডা. সুবোধ বিশ্বাস। তাঁর দাবি, হিন্দু শরনার্থীদের রক্ষাকবচ সিএএ-কে অবিলম্বে লাগু করার জন্য সচেষ্ট হোক মোদি সরকার।

বুধবার যুগশঙ্খকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে সুবোধ বিশ্বাস বলেন,‘ দেশভাগের বলি উদ্বাস্তু বাঙ্গালিদের নাগরিকত্ব দাবিতে নিখিল ভারত বাঙালি উদ্বাস্তু সমন্বয় সমিতি দীর্ঘ ১৬ বছর যাবত ধারাবাহিক আন্দোলন করে এসেছে। এবং এই আন্দোলন পশ্চিম বাংলার মাটি থেকে ভারতের আঠারটি রাজ্যে আমরা ছড়িয়ে দিয়েছি। গ্রাম গঞ্জের সীমানা পেরিয়ে নাগরিকত্বের দাবি একাধিকবার দিল্লির সংসদে পৌঁছে দিতে পেরেছি। কিন্তু অতীতে কোনও সরকার এই বিষয়ে আন্তরিকতা দেখায়নি। ভারতীয় জনতা পার্টি উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। সেই কারণেই নিখিল ভারতের পক্ষ থেকে আমরা লোকসভায় বিজেপিকে সমর্থন করেছিলাম।’
হতাশ সুরে সুবোধবাবু বলেন,‘করোনার সংকটময় পরিস্থিতির মধ্যেও কেন্দ্রীয় সরকার একাধিক বিল সংসদে পাশ করেছেন এবং বাস্তবে রূপায়ন করেছেন। দুর্ভাগ্য উদ্বাস্তুদের কাঙ্খিত সিএএ পাশ হলেও এখনও তা লাগু করা করা হয়নি। এনিয়ে উদ্বাস্তু এবং মতুয়াদের মধ্য সারাদেশে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। আমাদের পূর্বপুরুষ জন্মসূত্রে অখন্ড ভারতের নাগরিক। তাদের উত্তরসূরীরা ভারতের মাটিতে রাষ্ট্রহীন হতে পারে না। ভারত ভাগের শর্ত অনুযায়ী উদ্বাস্তুরা ভারতের নাগরিক। ভারতের নাগরিকত্ব তাদের জন্মসিদ্ধ অধিকার। এই অধিকার অর্জন করতে উদ্বাস্তু ও মতুয়ারা হাসিমুখে মৃত্যুকে বরণ করে নেবে। পিছুপা হবে না।’

সুবোধবাবুর দাবি,‘ বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে আইন সরলীকরণের মধ্য দিয়ে উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্ব দেবার সুব্যবস্থা না করা হয়, তাহলে উদ্বাস্তুরা তাদের অস্তিত্ব রক্ষার দাবিতে পথে নামতে বাধ্য হবে। নাগরিকত্ব এবং অসমের ডিটেনশন ক্যাম্প থেকে হিন্দু বাঙালিদের মুক্তির দাবিতে ৫৪ জন নিরাপরাধ নিখিল ভারতের আন্দোলনকারীরা ১৯ মাস কারাগারে নারকীয় যন্ত্রণা ভোগ করেছেন। তাদের আত্মত্যাগ ব্যর্থ যেতে পারে না।’

যদিও সুবোধবাবু এখন আশাবাদি নাগরিকত্ব বিল দ্রুতই আইনে পরিনত হয়ে লাগু হবে দেশজুড়ে। তিনি বলেন,‘ আমরা আশাবাদী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এই বিষয়টা আন্তরিকভাবে দেখবেন।’

Related Articles

Back to top button
Close