fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পেট্রোল-ডিজেলের মূল‍্যবৃদ্ধি নিয়ে মোদি সরকারকে আক্রমণ মৌসম নুরের

মিল্টন পাল, মালদা: রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে পেট্রোল ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধিকে ইস্যু করতে চলেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। আর এই করোনা সংক্রমনের মধ্যে পর পর পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে নুর মেনশনে সাংবাদিক বৈঠক করলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা রাজ্যসভার সাংসদ মৌসম নুর।

সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা সাংসদ মৌসুম নূর বলেন, করোনা সংকটের মুখে জেরবার দেশের মানুষ। কিন্তু তার মধ্যে কেন্দ্রের মোদি সরকার পেট্রোল-ডিজেলের দাম লাগাতার বাড়িয়ে চলেছে। জ্বালানির দাম বাড়ার ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দামেও আগুন লাগছে। সাধারণমানুষ সংকটের মুখে। সেই পরিস্থিতির দিকে একবারের জন্য ঘুরে তাকাচ্ছে না কেন্দ্রের বিজেপি সরকার।

মৌসুম নূর আরও বলেন, এরাজ্যের শ্রমিকদের ফেরানোর ক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি প্রথম থেকেই যেভাবে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। সে ক্ষেত্রে ততটাই উদাসীন মনোভাব দেখিয়েছে মোদি সরকার। শ্রমিকদের ভিন রাজ্যে আটকে রেখে তাদের হয়রানির মুখে ফেলা হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির জন্যই ভিন রাজ্যে আটকে থাকা শ্রমিকেরা বাংলায় নিজেদের বাড়ি ফিরতে পেরেছেন।

সাংসদ মৌসম নুর বলেন, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ সংবাদমাধ্যম। কিন্তু গোটা দেশেই সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠস্বর রোধ করার চেষ্টা চালাচ্ছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার ।আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি । গণতন্ত্রের আঘাত হানার চেষ্টা করা হলে মানুষ রাস্তায় নেমে এর যোগ্য জবাব দিবে । তবে এই মুহূর্তে পেট্রোল-ডিজেলের লাগামছাড়া মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানাতেই এই সাংবাদিক বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে। এরকম ভাবে যদি মূল্যবদ্ধি হতে থাকে, তাহলে সাধারণ মানুষের জীবন-জীবিকা সংকটের মুখে।মৌসুম নূর বলেন, অন্যান্য রাজ্যের থেকে এরাজ্যের করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই ভাল অবস্থায় রয়েছে । আক্রান্তের পাশাপাশি সুস্থ হয়েও বহু মানুষ নিজেদের বাড়ি ফিরেছেন। সাধারণ গরিব মানুষদের স্বার্থের কথা ভাবে বিশেষ ব্যবস্থা করেছে দল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

পাল্টা উত্তর মালদার বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু বলেন, রাজ্যের পরিশ্রমিক ফেরানো থেকে সংক্রমনের মোকাবেলায় রাজ্য সরকার ব্যর্থ। এই জরুরি পরিস্থিতিতে রাজ্যের শাসক দল কাজের নামে টাকা লুট করেছে,রেশন লুট করেছে। যার ফলে মানুষ এখন অসহায়। পরিযায়ী শ্রমিকেরা ফিরে আসলেও তাদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়নি এ রাজ্যের সরকার। শুধুমাত্র ঘরে বসে বড় বড় কথা বলছেন। আমাদের কেন্দ্রীয় সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে রাজ্যে ফিরিয়েছেন ট্রেন দিয়েছেন। এখন যে ইস্যুকে সামনে নিয়ে আসো মানুষ সমস্যাটাই বুঝে গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close