fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দুর্গাপুজো নিয়ে বৈঠক মালদায়, পুজো মন্ডপ ঘুরে দেখবে টাস্কফোর্স

মিল্টন পাল, মালদা: করোনা আবহে বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উংসব দুর্গাপুজোয় কোনওভাবে বিঘ্নিত না হওয়ার জন্য বৈঠক করা হল মালদার চাঁচলে। অন্যদিকে শহরেই এই বৈঠক করা হয়েছে। সেই দিকে নজর রেখে রাজ্য সরকারের বিধিনিষেধ মেনে সমস্ত পুজো কমিটিকে এবছর দুর্গাপুজো করতে হবে। সম্পূর্ণ বিধি-নিষেধ মানা হচ্ছে কিনা তা দেখতে গঠন করা হয়েছে বেশ কয়েকটি টাস্কফোর্স। মালদা সদর ও চাঁচোল মহাকুমার বিভিন্ন পুজো মন্ডপ গুলিতে এই টাস্কফোর্স ঘুরে দেখবে। কোনরকম বিধি নিষেধ অমান্য হলে সেই পুজো কমিটি গুলির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানা গিয়েছে মালদা শহরে মোট বড় পুজো রয়েছে ২২টি। এছাড়াও ছোট পুজো রয়েছে প্রচুর। এই বছর করোনা অতিমারীতে কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকার উদ্যোগ নিয়েছে যাতে কোনওভাবেই তা না ছড়িয়ে পরে। আর সেই কারণে দফায় দফায় করা হচ্ছে বৈঠক। ক্লাব উদ্যোক্তাদের বেঁধে দেওয়া হচ্ছে বিধি নিষেধ। এমনকি তা অমান্য করলে ক্লাব উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপও নেওয়ার কথা জানা হয়েছে। যদিও ক্লাব উদ্যোক্তরা এই নিয়ম নীতিকে সাধুবাদ জানিয়েছে উদ্যোক্তাদের।

[আরও পড়ুন- প্রয়াত ভাঙড়ের প্রাক্তন বিধায়ক আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা]

চাঁচোলের মহকুমা শাসক সব্যসাচী রায় জানান, ইতিমধ্যে বিভিন্ন পুজো কমিটি ও ব্যবসায়ী সংগঠনের সঙ্গে তাঁদের কয়েক দফা বৈঠক হয়ে গিয়েছে। সম্পূর্ণ নিয়ম কানুন মেনে এবছর পুজো করতে হবে। প্রতিটি মণ্ডপে স্যানিটাইজার ট্যানেল লাগাতে হবে। মাস্ক ছাড়া মন্ডপে ঢোকা যাবে না। মন্ডপ খোলা করতে হবে।

মালদা শহরের দিলীপ স্মৃতি সংঘের পুজো উদ্যোক্তা সর্বজিত দাস বলেন, সমস্ত নিয়মকানুন মেনে পুজো করা হবে। দুদিকে গেট থাকছে একটি বেরোনোর অন্যটি প্রবেশ করার। প্রবেশ করার গেটে স্যানিটাইজার ট্যানেল লাগানো হবে। নির্দিষ্ট সংখ্যায় লোক ঢোকানো হবে। সেই লোক বেরিয়ে গেলে আবার লোক ঢোকানো হবে।

মালদা শহরের ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক ক্লাবের পূজো উদ্যোক্তা দেবপ্রিয় সাহা বলেন, মাস্ক ছাড়া আমাদের মন্ডপে কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। যাদের মাস্ক থাকবে না তাদেরকে আমরা এই মাস্ক দেব। ইতিমধ্যেই ২৫হাজার মাস্ক আমরা বানিয়ে ফেলেছি। প্রশাসনের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাচ্ছি।

Related Articles

Back to top button
Close