fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

২০২১ সালের নির্বাচনী রণকৌশল সাজাতে বঙ্গ বিজেপি-র বৈঠক

ইন্দ্রাণী দাশগুপ্ত, নয়া দিল্লি: পশ্চিমবঙ্গের বেহাল আইনশৃঙ্খলা, একের পর এক বিজেপি কর্মী খুন, রাজ্যে মাওবাদী এবং সন্ত্রাসবাদীদের প্রশ্রয় দিয়ে এক আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করার অভিযোগ নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হতে চলেছে বঙ্গ বিজেপি। একই সঙ্গে ২০২১ এর বঙ্গ বিজয়কে সামনে রেখে কিভাবে রণকৌশল সাজানো হবে তার চুলচেরা বিশ্লেষণে চলছে এবং রোডম্যাপ তৈরি হচ্ছে বঙ্গ বিজেপির বৈঠক থেকে। মূলত ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত  কিভাবে বঙ্গ বিজেপি  নিজেদের আন্দোলন চালিয়ে যাবে তা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনা করবে বঙ্গ বিজেপি।

নিউ দিল্লিতে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে দু’দিনব্যাপী বিজেপির কোর কমিটির বৈঠক। এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিব প্রকাশ অরবিন্দ মেনন, মুকুল রায়, দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহা সহ একাধিক নেতৃবৃন্দ। বৈঠক শেষে এক সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত হন একযোগে মুকুল রায় দিলীপ ঘোষ এবং রাহুল সিনহা।

মুকুল রায় এবং রাহুল সিনহাকে সঙ্গে নিয়ে বঙ্গ বিজেপির পক্ষ থেকে সভাপতি দিলীপ ঘোষ সাংবাদিকদের জানান যে, “পশ্চিমবঙ্গে এই মুহূর্তে একটা আতঙ্কের পরিবেশ বিরাজ করছে। ইসলামিক সন্ত্রাসবাদ মাওবাদকে প্রশ্রয় দিয়ে পশ্চিমবঙ্গের রাজত্ব কায়েম করতে চাইছে তৃণমূল সরকার। যার বলি হচ্ছে একের পর এক বিজেপি কর্মী। পশ্চিমবঙ্গের একাধিক উগ্রপন্থী সংগঠনের যোগসাজশ পাওয়া গেছে। যার সম্প্রতি নিদর্শন হল মুর্শিদাবাদ থেকে গ্রেফতার হয়েছে ৬ আল-কায়েদা জঙ্গি। শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয় সমগ্র দেশে জঙ্গি আন্দোলনের ছক কষছিল তারা।

[আরও পড়ুন- CAA সন্ত্রাসীরাই কৃষি বিলের বিরোধিতা করছে: কঙ্গনা]

এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গের ভেঙে পড়া গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা সহ একাধিক সমস্যা নিয়ে আমরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে লিখিত অভিযোগ জানাব। একই সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গে সম্পূর্ণ ভেঙে পড়া সামগ্রিক আইন-শৃঙ্খলা ব্যবস্থা, একের পর এক বিরোধী রাজনৈতিক দলের বিধায়ক সাংসদ থেকে শুরু করে কর্মীদের মিথ্যে মামলায় জেলে ঢোকানো হুমকি দেওয়া থেকে শুরু করে একাধিক চিত্র আমরা সম্পূর্ণভাবে তুলে ধরব নির্বাচন কমিশনের সামনেও। কারণ এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গের যা আইন-শৃঙ্খলার অবস্থা তাতে যদি এখন নির্বাচন করা হয় তাহলে কখনোই সুষ্ঠু নির্বাচন করতে দেবে না শাসক দল। এই সমস্ত কিছু নিয়েই আমাদের এই বৈঠক”।

দিলীপবাবু আরও বলেন যে, “২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত তৃণমূলের লাগামছাড়া দুর্নীতি, কাটমানি, আমফানের টাকা লুট, রেশনে লুট সহ একাধিক ইস্যুতে কিভাবে বঙ্গ বিজেপি লড়াই আন্দোলন করবে তার রুট ম্যাপ তৈরি করছি আমরা। সাইবার ভার্চুয়াল এবং মাঠে নেমে লড়াই-এর ক্ষেত্রে কিভাবে বিজেপি কর্মীরা বুথ স্তরের কর্মীদের সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রেখে তৃণমূলের বিরুদ্ধে জোরদার আন্দোলন করতে সক্ষম হবে সেটা নিয়েই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গে আমরা কথা বলছি। ২৩ তারিখে এই দু’দিনব্যাপী সম্মেলনে যা যা সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে সেগুলো নিয়ে আমরা আলোচনা করব আমাদের নির্বাচিত সাংসদদের সঙ্গে। ২৩ তারিখের বর্ধিত বৈঠকে সাংসদদের পরিষ্কার করে দেওয়া হবে যে, কিভাবে ২০২১ এর বিধানসভা দখলের লড়াইয়ে আন্দোলনের ঝড় তুলতে হবে সমগ্র পশ্চিমবঙ্গে।

 

Related Articles

Back to top button
Close