fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিজেপি ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা (N.F.I.T.U) শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে জেলাশাসকের কাছে স্মারকলিপি

তারক হরি, পশ্চিম মেদিনীপুর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাশাসকের কাছে পরিযায়ী শ্রমিকদের নাম নথিভুক্ত ও অন্যান্য ১৪ দফা দাবি নিয়ে বিজেপির ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা (N.F.I.T.U) শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে স্মারকলিপি প্রদান করা হল।
মেদিনীপুর জেলাশাসকের অফিসের সামনে বিজেপির ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা (N.F.I.T.U) শ্রমিক সংগঠনের পক্ষে সভাপতি সাধন মাইতি ও সাধারণ সম্পাদক গোপাল রাও সহ জেলা কমিটির অন্যান্য নেতৃত্বেবর্গরা স্মারকলিপি প্রদানের পূর্বে গেটের সামনে একটি শান্তি বিক্ষোভ মিছিলে সামিল হন।

বিজেপির ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা (N.F.I.T.U)পশ্চিম মেদিনীপুরের সভাপতি সভাপতি সাধন মাইতি বলেন,”বর্তমানে পরিযায়ী শ্রমিক ও শিক্ষিত বেকার যুবকদের আজ শুধু বঞ্চিত আর লাঞ্ছিত হতে হচ্ছে, পরিযায়ীরা বাইরে থেকে ফিরে কাজ পাচ্ছে না, আর শিক্ষিতরা বেকারত্ব নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। মাননীয়া মেলা আর খেলা নিয়ে মজেছে। আগেরবারে পুজো কমিটিগুলিকে উদার হস্তে পঁচিশ হাজার অনুদান, এবারে করোনা আবহে তা বেড়ে পঁঞ্চাশ হাজার টাকা দিয়েছেন, খুব ভালো কথা! কিন্তু পরিযায়ী আর শিক্ষিত বেকারদের কথা ভেবেছেন? গত ছয়/সাত মাস মানুষগুলোর কাজ নেই, না খেতে পেয়ে হা হুতাশ করছে, তার দৃষ্টিপাত সরকারের নেই, বাইরে থেকে ফিরে এসে কেউ কেউ নিরুপায় হয়ে আবার কাজের খোঁজে ভিন রাজ্যে নিরুদ্দেশ হচ্ছেন, নেই কর্মসংস্থানের সমাধান, আছে শুধুই অবজ্ঞা! পরিযায়ী শ্রমিকদের সরকারি ভাবে নাম নথিভুক্ত করতে হবে, এবং রাজ্য সরকারকে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। সরকারি নিয়ম অনুসারে শ্রমিক কর্মচারীদের ন্যূনতম বেতন দিতে হবে।
বঞ্চিত শ্রমিক কর্মচারীদের অবিলম্বে পি.এফ /এছাড়াও আমরা বেশ কিছু দাবি জানাচ্ছি যে ইএসআই চালু করতে হবে।”

ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা (N.F.I.T.U)পশ্চিম মেদিনীপুর এর সম্পাদক গোপাল রাও বলেন- আমরা পরিযায়ী ও শিক্ষিত বেকারদের জন্য যে যে দাবি গুলো পূরণের জন্য স্মারকলিপি জেলাশাসকের নিকট দিলাম তা অবিলম্বে মানা না হলে আমরা জেলায় জেলায়, গ্রামে গ্রামে বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি গ্রহণ করব, তিনি আরও বলেন “সরকারি অফিসগুলিতে যে শূন্যপদ রয়েছে তা অবিলম্বে পূরণ করতে হবে, বর্তমানে চটশিল্প সহ যে সব কলকারখানাগুলো বন্ধ রয়েছে, তা অবিলম্বে খুলে দিক সরকার। আজ রাস্তায় রাস্তায় জুলুমবাজি, চাঁদা ইত্যাদির প্রতিবাদে রাজ্য ট্রাক ইউনিয়ন রাস্তায় ট্রাক দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন তার সম্প দায় সরকারের, গাড়ির ওভার লোডিং বন্ধ করতে হবে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দ্রব্য মুল্য হার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। বালি খাদানগুলি শাসক গোষ্ঠীর বিভিন্ন নেতা নেত্রীর অঙ্গুলিহেলনে প্রশাসনের মদতে অবৈধভাবে চলছে তা অবিলম্বেই বন্ধ করতে হবে। পশ্চিম বাংলায় কৃষকদের স্বার্থে কৃষক সন্মান নিধি প্রকল্প অবিলম্বেই সরকারকে চালু করতে হবে।

আয়ুষ্মান ভারত প্রধানমন্ত্রী যন আরোগ্য যোজনা পশ্চিমবঙ্গে নিশর্ত ভাবে শ্রমিককর্মী ও সাধারণ মানুষদের জন্য অবিলম্বে চালু করতে হবে, এবং চাষিদের ধান সঠিকমূল্যে (MPS) সরকারকে কিনতে হবে।”

আরও পড়ুন: নবদ্বীপ পতিতা পল্লীতে শিশু ও মহিলাদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণ 

এ দিনের জেলাশাসকের নিকট স্মারকলিপি প্রদান অনুষ্ঠানে নেতৃত্ব দেন বিজেপির ঘাটাল সাংগঠনিক জেলা (N.F.I.T.U) শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি সাধন মাইতি ও সাধারণ সম্পাদক শ্রী গোপাল রাও জেলা সদস্য জয়দেব দে, হিমাংশু পাত্র, পূর্ণেন্দু রানা, অভিজিৎ সিং সহ জেলা কমিটির অন্যান্য ব্যাক্তিবর্গ।

Related Articles

Back to top button
Close