fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বিদ্যুৎমন্ত্রীকে স্মারকলিপি, কোলাঘাট ও পাঁশকুড়া এলাকায় ব্যাপক লোডশেডিং

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট: গত এক সপ্তাহ ধরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাট ও পাঁশকুড়া সাপ্লাই এলাকায় লোডশেডিংয়ে গৃহস্থ সহ এলাকার ছোট ছোট শিল্প কারখানা গুলির চরম সমস্যার সম্মুখীন। আজ বৃষ্টি শুরু হলেও গত এক সপ্তাহ ধরে তীব্র ভাদ্রমাসের গুলগুলানি তে গৃহস্থের মানুষজন নাজেহাল। দুই এলাকার মানুষজন ইতিমধ্যেই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে এখন তো লকডাউন চলছে তাহলে এই সময় বারবার বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণ টা কোথায়।

 

বিদ্যুৎ নিয়ে এলাকার মানুষজন মোটেই খুশি নয়। বিদ্যুৎ দপ্তর মার্চ এপ্রিল মে মাসে মিটার রিডিং না নেওয়ায় ওই সময় গত বছর যে ইউনিট বিদ্যুৎ ব্যবহার হয়েছিল তাই পাঠিয়ে দেওয়ায় গ্রাহকরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে। এর পরের মাস গুলিতে মিটার রিডিং নেওয়ায় যে বিল করা হয়েছে সেই বিলে পূর্বের অতিরিক্ত ইউনিট যুক্ত থাকায় স্বভাবতই অধিকাংশ বিদ্যুৎ গ্রাহকরা স্ল্যাব বেনিফিট থেকে বঞ্চিত হয়েছে। সরকার ওই পিরিওডে ইলেকট্রিসিটি ডিউটি বাবদ ৩০০ ইউনিট পর্যন্ত ভর্তুকি দিত তাতে বেশ কিছু গ্রাহক সেই সুযোগ থেকে বঞ্চিত বলে অভিযোগ। লোডশেডিং ও স্লাব বেনিফিটের সুযোগ দিয়ে গত ছয় মাসের নতুন বিল রি জেনারেট করার দাবি নিয়ে মঙ্গলবার বিদ্যুৎ গ্রাহকদের পক্ষ থেকে রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়, পূর্ব মেদনীপুর বিদ্যুৎ দপ্তরে রিজিওনাল ম্যানেজার শ্যামল কুমার হাজরা এবং পাঁশকুড়া ও কোলাঘাট কাস্টমার কেয়ার সেন্টারের ম্যানেজারকে স্মারকলিপি প্রদান করা হলো।

পাঁশকুড়া কাস্টম কেয়ার সেন্টারের বিদ্যুৎ গ্রাহক তথা অল বেঙ্গল ইলেকট্রিসিটি কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশনের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা অফিসের সম্পাদক নারায়ণচন্দ্র নায়েক কে ধরা হলে তিনি বলেন গৃহস্থ ও ছোট ছোট শিল্প রক্ষা করার জন্য এই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। এর উন্নতি না হলে আগামী দিনের এই অ্যাসোসিয়েশন বৃহত্তর আন্দোলনের পথে শামিল হবে।
কোলাঘাট ও পাঁশকুড়া কাস্টম কেয়ার সেন্টারের ম্যানেজারকে ধরা হলে তারা বলেন এলাকার মানুষদের বিদ্যুৎ পরিষেবা সুষ্ঠুভাবে দেওয়ার জন্যই মাঝেমধ্যে ব্রেকডাউন করতে হয়, তবে গ্রামীণ এলাকায় যে সমস্ত লাইনগুলি গেছে গাছপালাসহ বিভিন্ন কারণে লাইনে তারে লাগলে বিপত্তি ঘটে।

Related Articles

Back to top button
Close