fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অবৈধ সম্পর্কের জের, গণপিটুনির শিকার ব্যক্তি

মিল্টন পাল, মালদা: গৃহবধূর সঙ্গে ভিন জেলার ব্যক্তির বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্ক। আর সেই সম্পর্কের জেরে গৃহবধূকে নিয়ে পালাতে গিয়ে গণপিটুনি শিকার হলো ব্যক্তি। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার মালদা টাউন স্টেশনে।

যুবককে হাতে নাতে ধরে গৃহবধূর পরিবারের লোকেরা প্রকাশ্য রাস্তায় ব্যাপক গণপিটুনি দেয়। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। অভিযুক্ত যুবককে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ ।ওই গৃহবধূর পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত যুবকের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

 পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত যুবকের নাম তাপস ঘোষ (৩২)। বাড়ি দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর থানার সাহাপাড়া এলাকায়। এদিন সকালে ইংরেজবাজার থানার দামোদরপুর এলাকার এক গৃহবধূ সীমা মজুমদারকে নিয়েই পালাচ্ছিল ওই যুবক বলে অভিযোগ। বিষয়টি জানতে পেরে ওই যুবকের পিছু ধাওয়া করে মালদা টাউন স্টেশনের কাছে ধরে ফেলে । এরপরেই ব্যাপক গণপিটুনি দেওয়া হয় তাঁকে। ওই গৃহবধূর একটি ১৩ বছরের নাবালক পুত্র সন্তান রয়েছে । সেও এদিন মাকে ফিরে পেতে স্টেশনে বাবার সঙ্গে ছুটে আসে।

 গৃহবধূর পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে,গৃহবধূ সীমা মজুমদারের বাবার বাড়ি ধৃত যুবকের এলাকাতেই। গত ছ’মাস ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বলে জানান গৃহবধূর স্বামী শংকর মজুমদার। এদিন গৃহবধূ দিদির বাড়িতে যাওয়ার নাম করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসে।

ওই গৃহবধূর স্বামী শংকর মজুমদার বলেন, এদিন তারা বাইরে পালানোর  উদ্দেশ্যে মালদা টাউন রেল স্টেশন চত্বরে আসে। এই ঘটনা গোপন সূত্রে  খবর পেয়ে গৃহবধূর স্বামী শংকর মজুমদার ও ছেলে শুভঙ্কর মজুমদার রেলস্টেশন চত্বরে এসে খোঁজাখুঁজি শুরু করে এবং স্থানীয় কিছু মানুষকে এই ঘটনার কথা বলেন। সেই সময় অভিযুক্ত যুবক অটো করে স্টেশন চত্বর থেকে পালানোর চেষ্টা করে । এরপর তাকে হাতেনাতে ধরে গণধোলাই গণধোলাই দেয় গৃহবধূর পরিবারের লোকেরা। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে  ওই গৃহবধূ তার আগেই সেখান থেকে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশকে খবর দিলে যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।  ঘটনায় অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close