fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রবিবার পর্যন্ত বৃষ্টিতে ভাসতে পারে বাংলার বেশ কয়েকটি জেলা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: বেশকিছু দিন ধরে ভ্যাপসা দম বন্ধ করা গরমের পর আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আকাশের মুখ ভার। সকাল বেলাতেই বজ্র বিদ্যুত্‍ সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল হাওয়া অফিস। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে বৃষ্টি হতে পারে হাওড়া ও হুগলী দুই জেলায়। হাওয়া অফিস বলছে, রবিবার পর্যন্ত ভারী বৃষ্টিতে ভাসবে দু’বঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলা।

আবহাওয়া দফতর সূত্রের খবর, কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলা গুলোয় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি চলবে রবিবার পর্যন্ত। তবে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে মালদহ ও উত্তর দিনাজপুরে। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার জলপাইগুড়ি-এই পাঁচ জেলায় রবিবার পর্যন্ত ভারী বৃষ্টি হবে বলেই জানিয়েছে হাওয়া অফিস। জানা গিয়েছে, বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি থাকায় আজ দিনভর আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি থাকবে।

এদিকে বঙ্গোপসাগরে ক্রমেই সক্রিয় হচ্ছে নিম্নচাপ। এর প্রভাবে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। আপাতত বিক্ষিপ্ত ভাবে হবে এই বৃষ্টি। সঙ্গে থাকবে থাকবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তির দাপট। বৃহস্পতিবার দক্ষিণবঙ্গের সর্বত্র বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে যেখানে বৃষ্টি হবে না সেখানে মারাত্মক ভাবে প্রকট হবে আপেক্ষিক আর্দ্রতা, যা দিনভর ভোগাবে জেলার মানুষকে। হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, মৌসুমী অক্ষরেখার অবস্থান এখন দক্ষিণবঙ্গের উপর। এর জেরেই বাতাসে জলীয় বাষ্প বাড়ছে, চরমে উঠেছে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি। তবে আশার কথা, বঙ্গোপসাগরে রবিবার নাগাদ তৈরি হবে নতুন করে নিম্নচাপ।

আরও পড়ুন: রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৩১০৭, মৃত ৫৩, সুস্থ ২৯৬৭

জানা গিয়েছে, আপাতত মৌসুমী অক্ষরেখার অবস্থান দক্ষিণবঙ্গে। পুরুলিয়া, খড়গপুর-এর ওপর দিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে মৌসুমী অক্ষরেখা উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। অসমের উপর রয়েছে একটি ঘূর্ণাবর্ত। তার টানেই জলীয়বাষ্প ঢুকছে বঙ্গোপসাগর থেকে। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সকালের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.৮ ডিগ্রী। বুধবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.৫ ডিগ্রী। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ ৬৯ থেকে ৯৫ শতাংশ।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close