fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মিড ডে মিলের সরঞ্জাম স্কুলে না পৌঁছানোয় বিডিও অফিসে বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিনিধি, দিনহাটা:  মিড ডে মিলের সরঞ্জাম দিনহাটা দুই ব্লকের এখনও অনেক স্কুলে না পৌঁছানোয় বিডিও অফিসে বিক্ষোভ ডেপুটেশন দিল পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি। সংগঠনের পক্ষ থেকে সোমবার এই আন্দোলনকে ঘিরে ব্যাপক আলোড়ন ছড়িয়ে পড়ে। লকডাউন  পরিস্থিতিতে স্কুলগুলিতে মিড ডে মিলের খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার   ক্ষেত্রে চরম অবস্থার অভিযোগ আনা হয়। এরই প্রতিবাদে এদিন  দিনহাটা দুই ব্লকের বিডিও অফিসে সংগঠনের পক্ষ থেকে রাজ্য কমিটির সদস্য দিনহাটা মহকুমা আহ্বায়ক  সুব্রত নাহা, ধনঞ্জয় রায়, সৈকত সরকার, বাপ্পাদিত্য রায়, পঙ্কজ মহন্ত , খালিদ হোসেন প্রমুখের নেতৃত্বে  অবস্থান-বিক্ষোভ ও ডেপুটেশন  দেওয়া হয়। এদিন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বিক্ষোভ চলাকালীন সংগঠনের এক প্রতিনিধিদল ব্লকের ভিডিওর সাথে দেখা করে তার হাতে দাবিপত্র তুলে দিয়ে শিক্ষকদের ও অভিভাবকদের অপমান করা সহ নানা অভিযোগ তুলে ধরেন।

[আরও পড়ুন- শিলিগুড়িতে এটিএম লুঠের চেষ্টা, পর্দা ফাঁস পুলিশের]

পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির  কোচবিহার জেলা সভাপতি দেবাশীষ কর , রাজ্য কমিটির সদস্য দিনহাটা মহকুমা আহ্বায়ক  সুব্রত নাহা বলেন স্কুলগুলিতে চতুর্থ দফায় মিড ডে মিলের সামগ্রী পৌঁছানোর ক্ষেত্রে যে অব্যবস্থা তারই প্রতিবাদে তাঁদের এই আন্দোলন। জেলার একমাত্র দিনহাটা দুই  ব্লকে এই ঘটনার মধ্য দিয়ে শিক্ষকরা যেমন সম্মানিত বোধ করছেন তেমনি মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া সুবিধা থেকে ছোট ছোট শিশুদেরকে বঞ্চিত করার প্রয়াস চক্রান্ত চলছে বলেও তাদের অভিযোগ। সংগঠনের পক্ষ থেকে দাবিপত্রের প্রতিলিপি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের মুখ্য সচিব, কোচবিহারের জেলাশাসক, দিনহাটা মহকুমা শাসক প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরে প্রেরণ করা হয়।

বিষয়টি নিয়ে দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা অনুযায়ী প্রতিটি স্কুলে সাত জুলাইয়ের মধ্যে মিড ডে মিলের সরঞ্জাম পৌঁছে যাওয়ার কথা। নির্ধারিত দিনে অভিবাবকদের হাতে তা তুলে দেওয়ার কথা থাকলেও দিনহাটা দুই ব্লকে এখনও অনেক স্কুলে সেই সব সামগ্রী  না পৌঁছানোয় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের হয়রানি হতে হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close