fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

ফের উত্তপ্ত সিরিয়া, ইজরায়েলের বিমান হানায় নিহত ৩ সেনা

দামাস্কাস, সংবাদ সংস্থা: আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সিরিয়া। মঙ্গলবার রাতে, যুদ্ধবিমান থেকে সিরিয়ায় হামলা চালিয়েছে ইজরায়েলের সেনাবাহিনী। এই হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন তিন সিরীয় সেনা, আহত হয়েছেন একজন। বুধবার এক বিবৃতিতে ইজরায়েলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, গতরাতে ইরানি কুদস ফোর্স ও সিরীয় সশস্ত্র বাহিনীর সামরিক স্থাপনায় হামলা চালানো হয়েছে।

মূলত, দখলকৃত গোলান মালভূমিতে বিশেষায়িত বিস্ফোরক দ্রব্য (আইইডি) খুঁজে পাওয়া গেছে দাবি করে, প্রতিশোধ হিসেবেই সিরিয়ায় হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে ইজরায়েলি কর্তৃপক্ষ। শুধু তাই নয়, ইরানি ও লেবানিজ হিজবুল্লার অধীনে থাকা স্থাপনার পাশাপাশি কিছু সরকারি জয়গাতেও হামলা চালানো হয়েছে দাবি করেছে ইজরায়েল। এপ্রসঙ্গে, ইজরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্টজ বলেছেন, আমরা এই অঞ্চলে বিস্ফোরক স্থাপন কিছুতেই সহ্য করবেন না। আমরা এ বিষয়ে অন্ধ হয়ে থাকতে পারি না। এটা একটা ভয়াবহ ঘটনা। অন্যদিকে, ইজরায়েলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, সিরিয়ার ভেতর থেকে সবধরনের আক্রমণাত্মক কর্মকাণ্ডের জন্য দায়ি বাসার আল-আসাদের সরকার। তাই, সেখানে ইরানি যোগসূত্রের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় সবধরনের পদক্ষেপ অব্যাহত রাখবে ইজরায়েল।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালে মধ্যপ্রাচ্য যুদ্ধে সিরিয়ার কাছ থেকে গোলান মালভূমি অঞ্চলটি দখল করে ইজরায়েল। এরপর ২০১১ সালে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরুর পর এই অঞ্চলে কয়েক শতবার বিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইজরায়েল। তবে, সিরিয়ায় পরিচালিত একক অভিযানের কথা খুব কমই স্বীকার করেছে ইজরায়েল। যেগুলোর কথা জানিয়েছে সেগুলিকেও ইজরায়েলি অঞ্চলের হুমকি মোকাবিলার ব্যবস্থা হিসেবে দাবি করেছে তারা।

শুধু ইজরায়েল নয়, সিরিয়ার দখল ঘিরে সিরিয় সরকার, তুরস্ক ও রাশিয়ার মধ্যেও শুরু হয়েছে কূটনৈতিক টানাপোড়ন। সম্প্রতি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগান হুমকি দিয়েছেন, সিরিয়া সীমান্তে সশস্ত্র কুর্দিদের না সরালে সেখানে সামরিক অভিযান করা হবে। পার্লামেন্টের এক ভাষণে তিনি জানান, ‘আমাদের প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছিলো সব সন্ত্রাসবাদীদের সরিয়ে দেয়া হবে। তা না করা হলে যেকোনো মুহূর্তে হস্তক্ষেপ করার ন্যায্য অধিকার আমাদেরও আছে। আমরা তার প্রয়োজনও অনুভব করছি।’

উল্লেখ্য, গত মাসে আগে তুরস্কে ঢুকে পড়ে দু’জন সশস্ত্র কুর্দি। সীমান্ত প্রদেশে পুলিশের তাড়া খেয়ে তাদের একজন আত্মঘাতী বোমা হামলা চালায়। অন্যজনকে গুলি করে হত্যা করে পুলিশ। এরপর, সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে ন্যাশনাল আর্মির প্রশিক্ষণ শিবিরে বিমান হামলা চালায় রাশিয়া। এই বিমান হামলায় প্রাণ হারান ৩৫ জন। বর্তমানে যে প্রদেশটি দখল করে রেখেছে তুরস্ক সমর্থিত বিদ্রোহীদের মধ্যে ১১টি গোষ্ঠী। সূত্রের খবর, সিরিয়ার সেনারা এখন ইদলিব প্রদেশটি নিজেদের দখল করতে চাইছে। তাদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে রাশিয়া। এ নিয়ে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে। এই পরিস্থিতিতে এরদোগানের হুমকি থেকে পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে যে, উত্তেজনা আরো বাড়তে পারে। আর হুমকি অনুযায়ী এরদোগান যদি সিরিয়ায় সামরিক অভিযান করেন, তা হলে পরিস্থিতি জটিল হবে। বড় ধরনের সংঘাতের সম্ভাবনাও বাড়বে। কেননা, এর আগেও ২০১৬ সাল থেকে তুরস্ক তিনবার উত্তর পশ্চিম সিরিয়ায় কুর্দিদের সরাতে অভিযান চালিয়েছে। আর এর সাথে যুক্ত হয়েছে, গোলান মালভূমি নিজেদের দখলে রাখতে পুনরায় ইজরায়েলের সক্রিয় হয়ে ওঠা।

Related Articles

Back to top button
Close