fbpx
পশ্চিমবঙ্গ

ছাপুরে আটকে পড়া পরিযায়ীদের ঝাড়খণ্ডে ফেরত পাঠালো রাজ্য

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: করোনা পরিস্থিতির জেরে দেশে জারি হওয়া লকডাউনের মধ্যে পড়ে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ইছাপুরে আটকে ছিলেন প্রায় ৫০ জন পরিযায়ী শ্রমিক । তারা সকলেই ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা বলে জানা গেছে । রাজ্য সরকারের পরিবহন দপ্তরের সাহায্যে ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের দলকে রাজ্য সরকারের বাসে করে ঝাড়খন্ডে পাঠাল প্রশাসন । নিজেদের রাজ্যে ফিরতে পেরে খুশি পরিযায়ী শ্রমিকরা

উত্তর ২৪ পরগনার জেলা প্রশাসন আর রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে কংগ্রেস ও তৃণমূল দলের কর্মীরা প্রশাসনের সাথে মিলে প্রায় ৫০ জন পরিযায়ী শ্রমিকদের দায়িত্ব নিয়ে তাদেরকে ঝাড়খণ্ড রাজ্যে পৌঁছে দেওযার ব্যবস্থা করলেন।

বৃহস্পতিবার রাতে উত্তর ২৪ পরগনার ইছাপুরে কাজ করতে আসা ৫০জন পরিযায়ী শ্রমিককে প্রশানিক সহযোগিতায় পশ্চিমবঙ্গ পরিবহন দপ্তরের বাসে তুলে ঝাড়খন্ডে তাদের নিজ রাজ্যে পাঠিয়ে দেওয়া হল ।দুপায়সা বেশি রোজগার করার আশায় এই ৫০ জন পরিযায়ী শ্রমিক ঝাড়খণ্ড থেকে উত্তর ২৪ পরগনার ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের ইছাপুরে এসেছিলেন। কিন্তু লকডাউনের ফলে কাজ হারিয়ে আটকে পরেছিলেন তারা। জমানো টাকা যা ছিল তাও শেষ হয়ে গেছিল । ফলে অনাহারে দিন কাটছিল তাদের।

তবে ওই সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা যাতে সুস্থ ভাবে নিজেদের বাড়ি ফিরে যেতে পারেন তার জন্য দুই রাজনৈতিক দলের কর্মীরাই একযোগে পুলিশ প্রশানসনের দ্বারস্থ হন। পুলিশ প্রশাসনও এগিয়ে এসে ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে দেয় এবং দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রিয় পরিবহন সংস্থার বাসে করে ওই পরিযায়ী শ্রমিকদেরকে তাদের বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। এই পরিযায়ী শ্রমিকরা তাদের নিজেদের বাড়ি যেতে পেরে খুবই খুশি। তারা জানান “আমাদের কাজ বন্ধ হয়ে গেছে ফলে ঠিকমত খেতেও পাচ্ছিলাম না। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস ও কংগ্রেসের কর্মী দাদারা আমাদের অনেক সাহায্য করেছেন। আর পুলিশ প্রশাসনকেও অনেক ধন্যবাদ জানাই, আমাদেরকে নিরাপদে বাড়ি ফিরে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য।” ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর সময় কংগ্রেস কর্মী ও তৃণমূল কর্মীরা বলেন “এখন যা পরিস্থিতি তাতে রাজনীতিকে দূরে রেখে মানবিকতাকে সামনে রেখে অসহায় মানুষ দের পাশে দাড়াতে হবে। আমরা সবাই মিলে তাই করেছি। আমরা চাই পরিযায়ী শ্রমিকরা নিরাপদে তাদের বাড়ি ফিরে যান।”

Related Articles

Back to top button
Close