fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নদী ভাঙন রুখতে কালনার এলাকা পরিদর্শনে মন্ত্রী ও জেলাশাসক

অভিষেক চৌধুরী,কালনা: নদীভাঙন রুখতে নদীপথে কালনার কয়েকটি এলাকা পরিদর্শন করলেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী। সঙ্গে ছিলেন সভাধিপতি শম্পা ধারা,সহ সভাধিপতি দেবু টুডু,মহকুমাশাসক সুমন সৌরভ মোহান্তি সহ অন্যান্যরা। ভাগীরথীর ভাঙন রুখতে কালনা ও কাটোয়া নদীপাড় বাঁধানো সহ অন্যান্য কাজ খুব শীঘ্রই শুরু হবে বলে জানা যায়।

কয়েক দশক ধরেই নদী সংলগ্ন কালনার কয়েকটি এলাকায় নদীর ভাঙনে আতঙ্কিত বহু পরিবার। এর আগে বহু চাষের জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গিয়েছে।অতীতে বোল্ডার,বাঁশের খাঁচা ফেলেও কোনওভাবে ভাঙন রোখা যায়নি।এবারও নদীর জল বাড়তেই ফের ভাঙন শুরু হয়েছে পূর্ব বর্ধমানের কালনার কালীনগর ও উদয়গঞ্জ এলাকায়।স্বাভাবিক কারণেই নদী পাড়ের বাসিন্দা ও চাষের জমির মালিকদের রাতের ঘুম উধাও। কালনার ধাত্রীগ্রাম পঞ্চায়েতের অধীন কালীনগর ও উদয়গঞ্জ গ্রামদুটি স্থলপথে শহরের সঙ্গে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন। অথচ গ্রামদুটির বাসিন্দাদের স্কুল, কলেজ, হাট-বাজার, চিকিৎসার জন্য নৌকায় প্রতিদিন নদী পার হয়ে কালনায় আসতে হয়। দুটি গ্রামই সম্পূর্ণ কৃষিপ্রধান এলাকা।ঘোরতর বর্ষার আগেই নদীর ভাঙন রুখতে নদীপথে লন্চে করে এলাকা পরিদর্শন করেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ,জেলাশাসক বিজয়ভারতী সহ অন্যান্যরা।

আরও পড়ুন: সংক্রমণ রুখতে ই-অফিস চালু করতে চায় কলকাতা পুরসভা

টেন্ডার প্রক্রিয়ার কাজ সম্পন্ন করেই দ্রুততার সঙ্গে কালনা ও কাটোয়ার অগ্রদ্বীপের নদী সংলগ্ন এলাকায় নদীর ভাঙণ রুখতে নির্মান কাজ শুরু হবে বলে এইদিন জানা যায়। ইরিগেশন দপ্তরের উদ্যোগে এই কাজে প্রায় পন্চাশ লক্ষ টাকা অনুমোদন হয়েছে বলেও জানা যায়।এই বিষয়ে জেলাশাসক বিজয় ভারতী বলেন,‘নদীর জল বাড়ছে।কালনার কালীনগর এলাকা পরিদর্শণ করা হোলো।ভাঙন প্রবণ এলাকায় ভাঙন রুখতে খুব শীঘ্রই কাজ শুরু হবে ইরিগেশন দপ্তরের উদ্যোগে।’

Related Articles

Back to top button
Close