fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব

বাপ্পা রায়, ময়নাগুড়ি: ময়নাগুড়ি ব্লকে ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে এলেন রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব। সোমবার রাত আনুমানিক ৯.৩০ মিনিট নাগাদ আচমকাই ধেয়ে আসে কাল বৈশাখী ঝড়। সেই ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয় ময়নাগুড়ি ব্লকের ৫ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা। বিশেষত ময়নাগুড়ি ব্লকের খাগড়াবাড়ি ১ ও ২, আমগুড়ি, চূড়াভান্ডার দোমহনী ১ নং গ্রাম পঞ্চায়েতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। মঙ্গলবার সেই এলাকা পরিদর্শন করেন ময়নাগুড়ি ব্লক প্রশাসন এবং জনপ্রতিনিধিরা। বুধবার ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলিকে পরিদর্শন করলেন রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী।

 

 

বুধবার প্রথমে তিনি ময়নাগুড়ি ইন্দিরা মোড় এলাকায় গিয়ে সেখানে এক সংস্থার পক্ষ থেকে কমিউনিটি কিচেনে পরিযায়ী শ্রমিকদের প্রতিদিন খায়ানো হচ্ছে তা পরিদর্শন করেন। এরপর সেখান থেকে আসেন ময়নাগুড়ি সমষ্টি উন্নয়ন অধিকরণে। সেখানে ময়নাগুড়ি মহিলা উপ সংঘের ভবনে প্রশাসনিক বৈঠক করেন। প্রশাসনিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব, এসজেডিএ এর চেয়ারম্যান বিজয় চন্দ্র বর্মন, জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরা বর্মন, ময়নাগুড়ির বিডিও ফিন্টোস শেরপা, বিধায়ক অনন্ত দেব অধিকারী, ব্লক সহ কৃষি অধিকর্তা কৃষ্ণা রায়, ময়নাগুড়ির বিদ্যুৎ বণ্টন অফিসের স্টেশন ম্যানেজার কিতাবুল হক,পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শিবম রায় বসুনিয়া, কৃষি কর্মাধক্ষ বিমলেন্দু চৌধুরী সহ প্রমুখরা। সেখানে তিনি ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা তিনি শোনেন।

 

 

বৈঠকে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিয়ে একটি আনুমানিক হিসাব ধরা হয় যা পর্যটনমন্ত্রী রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠাবেন। মঙ্গলবার ব্লক প্রশাসন এবং জন প্রতিনিধিরা এলাকা পরিদর্শন করে জানান ৫ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় প্রায় ৪ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। সেই রিপোর্ট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠাবেন বলে জানান রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী। খুব দ্রুত কিভাবে এই এলাকাগুলিতে ত্রাণ পাঠানো যায় সেই বিষয়টিও জানাবেন। এরপর তিনি সেখান থেকে বেরিয়ে পড়েন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে প্রথমে তিনি চূড়াভান্ডার গ্রাম পঞ্চায়েতের রথেরহাট এলাকায় যান । সেখান থেকে বেরিয়ে ধওলাগুড়ি ১ নং বুথ হয়ে চারেরবাড়ি এলাকা পরিদর্শন করেন। আকাশ খারাপ থাকায় সেখান থেকে বেরিয়ে খাগড়াবাড়ি ২ নং এর দ্বারিকামারী এলাকা পরিদর্শন করে তিনি বেরিয়ে পড়েন জলপাইগুড়ির উদ্যেশ্যে।

 

 

বুধবারের প্রশাসনিক বৈঠকের পর পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব বলেন, ” একেই করোনা পরিস্থিতি তার মাঝেই এরকম একটা বিপর্যয় সত্যি খুব খারাপ অবস্থা। আমি বিভিন্ন ভাবে জানতে পেরেছি সোমবারের ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে ময়নাগুড়ির ৫ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। বিভিন্ন জায়গায় বিদ্যুতের খুঁটি এবং তার ছিঁড়ে গিয়ে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে বিভিন্ন এলাকায়। আমি বিদ্যুৎ বন্টন দফতরের সাথে কথা বলেছি তারা ইতিমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছেন। আজকে বা কালকের মধ্যেই মেইন লাইন চালু হয়ে যাবে। ঝড়ে বিধ্বস্ত এলাকাগুলো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পরিদর্শন করা হলো। এই সমস্ত রিপোর্ট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠাবো। তিনি অবশ্যই এই ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোর জন্য ব্যবস্থা নেবেন। আমি আজকে ক্ষয়ক্ষতির বিষয় নিয়ে জেলা শাসক এর সাথে বৈঠক যাতে খুব দ্রুত ত্রাণের ব্যবস্থা করা যায়।

Related Articles

Back to top button
Close