fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মলয় ঘটকের কেন্দ্রে সংখ্যালঘু প্রার্থী দেওয়ার দাবি প্রাক্তণ তৃণমূল কাউন্সিলরদের

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: আসানসোল উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক হলেন রাজ্যেরআইন ও শ্রম মন্ত্রী মলয় ঘটক। দলের পদাধিকারবলে মলয় ঘটক পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান। সেই বিধানসভা কেন্দ্রে ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে সংখ্যালঘু প্রার্থী দেওয়ার দাবি তুললেন ঐ কেন্দ্রের আওতায় আসানসোল পুরনিগমের ৩ প্রাক্তন তৃণমূল  কাউন্সিলর।
আসানসোল উত্তর বিধানসভার রেলপার এলাকায় মোট ৪ জন সংখ্যালঘু তৃণমূল কংগ্রেসের কাউন্সিলর রয়েছেন। যার মধ্যে ৩ জনই প্রকাশ্যে এই দাবি তুলেছেন। ঐ কাউন্সিলরদের সঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলনে শাসক দলের সংখ্যালঘু সেলের অন্য নেতাদেরও দেখা যায়। তারমধ্যে অন্যতম হলেন আসানসোল পুরনিগমের প্রাক্তন মেয়র পারিষদ রবিউল ইসলাম। বর্তমানে তিনি আসানসোল পুরনিগমের লিগাল এ্যাডভাইজার বা আইনী পরামর্শদাতা হিসাবে রয়েছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে সংখ্যালঘু কাউন্সিলররা দাবি করেন, আসানসোল উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রে প্রায় ৩৫ শতাংশ ভোটার সংখ্যালঘু। তাই ২০২১ বিধানসভায় তৃণমূলের সংখ্যালঘু প্রার্থী দিলে সংখ্যালঘুদের অধিকার প্রতিষ্ঠা হবে ও সংখ্যালঘুদের আরও উন্নয়ন হবে বলে প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর হাজি নাসো, ওয়াসিমূল হক ও প্রাক্তন বরো চেয়ারম্যান গুলাম সরবর এই দাবি তোলেন ।

এই কাউন্সিলরদের সঙ্গে নেতা ররিউল ইসলাম, সঈফউদ্দিন আনসারি সহ অন্যদের অভিযোগ, রেলপারের মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় ঠিক মতো উন্নয়ন হয়নি। তারা আরও বলেন, বিহার বিধানসভায় আসাদউদ্দিন ওয়েসির প্রার্থীরা সংখ্যালঘু ভোট কেটেছেন। ফলে মহাজোট পিছিয়ে পড়েছে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষেরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে থাকলেও বিভ্রান্ত রয়েছেন। তাই ঐসব মানুষের একাংশের ভোট অন্যত্র চলে গেলে তৃণমূল কংগ্রেসেরই ক্ষতি হবে। তাই সময় থাকতেই আমরা আমাদের দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই বার্তা দিতে চাইছি তিনি যেন বিষয়টি বিবেচনা করেন। উল্লেখ্য আসানসোল উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক রাজ্যের মন্ত্রী মলয় ঘটক এই কেন্দ্রে থেকে পরপর দুবার প্রার্থী হয়ে জয়ী হয়েছেন। মন্ত্রী বর্তমানে রয়েছে কলকাতায়। তার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, কারা কি বলেছে আমার জানা নেই। উন্নয়ন না হওয়ার খবর ঠিক নয়।

তবে আসানসোল উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন কাউন্সিলর, পুরনিগমের প্রাক্তন পুরচেয়ারম্যান তথা বর্তমান পুর প্রশাসক বোর্ডের সদস্য অমরনাথ চট্টোপাধ্যায় সংখ্যালঘু কাউন্সিলরদের যুক্তি উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, জাতিভেদের মধ্য দিয়ে প্রার্থী নির্বাচন করার অর্থ সুস্থ সমাজ তৈরিতে বাধা দেওয়া। এমনটা হলে প্রকৃত উন্নয়ন থেকে পিছিয়ে পড়বে এলাকা। তিনি মনে করেন, মন্ত্রী মলয় ঘটকের নেতৃত্বে গোটা আসানসোল উত্তর বিধানসভা এলাকায় সার্বিক উন্নয়নের কাজ হয়েছে। সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকায় স্কুল, কবরস্থান, আলো, জল, রাস্তা বহু কাজ হয়েছে।

অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গ যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সংখ্যালঘু সেলের জেলা সম্পাদক সাগির আলম কাদরি বলেন, মলয় ঘটকের নেতৃত্বে নতুন জেলা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে। উর্দু কলেজ নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। আসানসোলে জেলা হাসপাতাল হয়েছে। এমনকি জেলা প্রশাসনের সমস্ত নতুন দপ্তরগুলিও এই আসানসোল উত্তর বিধানসভা এলাকাতেই তৈরি হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close