fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

খড়দহে কমিউনিটি কিচেনে দুষ্কৃতী হামলা, চলল গুলি, বোমাবাজি, এলাকায় উত্তেজনা

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহের বিবেক নগরে পাড়ার কমিউনিটি কিচেন চলাকালীন দুষ্কৃতী হামলার ঘটনায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে ওই এলাকায় । অভিযোগ, দুটি বাইকে করে এসে বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী এলাকায় স্বশস্ত্র অবস্থায় এসে হামলা চালায় । ওই কমিউনিটি কিচেনের সঙ্গে যুক্ত সূরজ শেঠ নামে এক বিজেপি কর্মীকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে ওই দুষ্কৃতীরা । বরাত জোরে প্রাণে বেঁচে যায় ওই বিজেপি কর্মী । এদিকে সূরজ শেঠকে দুষ্কৃতীদের হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে জখম হন শান্তনু বসু নামে অপর এক বিজেপি কর্মী । স্থানীয় দুষ্কৃতীরা এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ । খড়দহ থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ।

 

 

জানা গেছে, রবিবার রাতে খড়দহের বিবেক নগরে স্থানীয় কমিউনিটি কিচেনের তদারকি করা বিজেপি কর্মী সূরজ শেঠকে খুন করার চেষ্টা করে স্থানীয় কিছু দুষ্কৃতী । তারা দুটি বাইকে স্বশস্ত্র অবস্থায় এসে কমিউনিটি কিচেনের সামনে তদারকি করা সূরজ শেঠকে প্রথমে চর মারে । তারপর তাকে লক্ষ্য করে পরপর তিন রাউন্ড গুলি চালায় বলে অভিযোগ । বিবেক নগর এলাকায় সন্ত্রাস সৃষ্টি করতে এলাকায় মুহুর মূহুর বোমাবাজিও করে ওই দুষ্কৃতীরা । স্থানীয় বিজেপি কর্মী সূরজ শেঠকে যখন দুষ্কৃতীরা মারতে আসে তখন তাকে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন শান্তনু বসু । তার হাতে গুলি লাগে । এদিকে এই ঘটনার পর চিৎকার চেঁচামেচিতে বোমা মারতে মারতে পালিয়ে যায় ওই দুষ্কৃতীরা ।

 

 

 

ঘটনায় জখম শান্তনু বসু বলেন, “আমরা নিজেরা বিজেপি সমর্থক হলেও কোন রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থেকে এই কমিউনিটি কিচেন চালাচ্ছি না । আমরা দলমত নির্বিশেষে গরীব মানুষের কাছে রাতের খাবার পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছি । রাতে যখন গরীব মানুষদের জন্য আমরা কুপন দিতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম, তখন হামলা কারীরা এসে সূরজকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় এবং তাকে খুনের চেষ্টা করে । তখন ওকে বাঁচাতে গেলে আমার হাত স্পর্শ করে গুলি বেরিয়ে যায় । আমরা খড়দহ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি । দুষ্কৃতীরা সকলেই স্থানীয় । সবাইকে আমরা চিনি । পুলিশকে বলেছি ওই দুষ্কৃতীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করতে হবে ।”

 

 

 

সূরজ শেঠ বলেন, “খড়দহের এই বিবেকনগর এলাকায় যেহেতু আমরা কমিউনিটি কিচেন থেকে এলাকার দুঃস্থ অসহায়দের সাহায্য করছি, সেটাই ঈর্ষার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে টিটাগড় পৌরসভার পৌর প্রশাসক প্রশান্ত চৌধুরীর অনুগামীদের কাছে । তাই ওরা আমার উপর হামলা চালিয়েছে । এই বিবেক নগরের স্থানীয় মানুষরা আমাদের সাহায্য করছে বলেই এই কমিউনিটি কিচেন করতে পারছি আমরা । তৃণমূল নেতা প্রশান্ত চৌধুরীর অনুগামীরা তিন রাউন্ড গুলি চালিয়েছে এবং অন্তত ২০/১২ টি বোমা মেরেছে এই এলাকায় ।”

 

 

 

এদিকে এই ঘটনা সম্পর্কে টিটাগড় পুরসভার পৌর প্রশাসক প্রশান্ত চৌধুরী বলেন, “দুষ্কৃতীরা এই ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে । তারা কেউ তৃণমূল কর্মী নয় । এলাকায় যাতে বিদ্যুৎ সংযোগ দ্রুত স্বাভাবিক হয়, তা নিয়ে আমরা ব্যস্ত ছিলাম । এই সুযোগে কে বিবেক নগরে হামলা করল জানি না । হামলাকারীরা যদি কেউ তৃণমূল কর্মী হয়, পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে ।” খড়দহ থানার পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে । অভিযুক্ত দুষ্কৃতীদের খুঁজছে পুলিশ

Related Articles

Back to top button
Close