fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

মায়ানমারে সুকি’র নির্বাচনী ‘জয়’ নিয়ে বিতর্ক

নেপিডো, সংবাদ সংস্থা:পুনরায় মায়ানমারের সাধারণ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছে অং সান সু কির দল ‘ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি’ (এনএলডি)। ভোটের সর্বশেষ ফলাফল অনুসারে এনএলডি পেয়েছে ৩৪৬টি আসন, যা সরকার গঠনের প্রয়োজনীয় ৩২২ আসনের থেকে অনেক বেশি। সূত্রের খবর, ফলাফলে এনএলডি এগিয়ে থাকলেও ৬৪ টি আসনের ফলাফল এখনও ঘোষণা হয়নি। একইসঙ্গে, সেনা-সমর্থিত বিরোধী দল পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, মায়ানমারে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে ৪২৫ ও উচ্চকক্ষে ১৬১ আসন আছে। ৫০ বছরের বেশি সময়ের সেনাশাসনের কবল থেকে মুক্ত হয়ে ২০১৫ সালে মায়ানমারে প্রথমবার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেসময়, তখন সু কির দল সংসদের মোট ৩৯০ টি আসনে বিজয়ী হয়। তবে এবার বেশ কিছু আসন হারাতে হয়েছে তাদের। তাছাড়া, বিদেশি নাগরিকের সঙ্গে বিয়ে করার কারণে এবারও প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না সু’কি। পুনরায় তিনি ‘স্টেট কাউন্সিলর’ হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারেন।

এদিকে জানা যাচ্ছে, গত রবিবার দেশজুড়ে যে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে, তাতে ভোটার হিসাবে ৩ কোটি ৮০ লক্ষ জনগণ ভোট প্রদানের সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু এই অধিকার প্রদান থেকে বঞ্চিত হয়েছেন ২৬ লক্ষের অধিক রোহিঙ্গাসহ সংখ্যালঘুরা। সম্প্রতি এপ্রসঙ্গে ‘ফরটিফাই রাইটস’-এর প্রধান ও মানবাধিকার বিশেষজ্ঞ জন কিনলি জানিয়েছেন, ‘রোহিঙ্গাদের ভোটাধিকার দেওয়া হচ্ছে না শুধু তাই নয়, রোহিঙ্গা রাজনৈতিক দলগুলোকেও নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দেওয়া হচ্ছে না। শুধু জাতিগত পরিচয়ের কারণে এসব সাহসী, বুদ্ধিদীপ্ত ও যোগ্যতাসম্পন্ন মানুষদের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে দেওয়া হচ্ছে না।’ এছাড়া, ‘হিউম্যান রাইটস ওয়াচ’ এই নির্বাচনকে ‘মৌলিকভাবে ত্রুটিযুক্ত’ বলে উল্লেখ করেছে। আন্তর্জাতিক এই মানবাধিকার সংগঠনটি উদ্বেগ প্রকাশ করে জানিয়েছে, ‘সংঘাত কবলিত এলাকায় একাধিক জনগোষ্ঠীর ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত, সংঘাতকে আরও বাড়িয়ে দিতে পারে।’

Related Articles

Back to top button
Close