fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দোকানদারের মোবাইল চুরি, সিসিটিভি দেখে ধৃত ২ দুষ্কৃতী

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: গামছা কেনার অছিলায় দোকানদারের মোবাইল চুরি। সিসিটিভির ফুটেজে ধরা পড়ল সেই ছবি। আর ওই ছবি দেখে মোবাইল চোরদের ধরে পুলিশের হাতে তুলে দিল এলাকাবাসী। অভিযুক্তদের বাড়ী ঘেরাও করে বিক্ষোভ ক্ষিপ্ত জনতার। পরিস্থিতি সামল দিতে দুই মোবাইল চোরকে গ্রেফতার করল পুলিশ। এক ঘটনাকে ঘিরে চরম উত্তেজনা ছড়াল দুর্গাপুর নিউ টাউনশিপ থানার মহালক্ষী পার্ক এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ধৃতদের নাম রাহুল রায় ও সঞ্জু সুধাকর। রাহুল রায়ের বাড়ি বিধাননগর মহালক্ষী পার্ক এলাকায়। সঞ্জু সুধাকরের বাড়ি ফুলঝোড় সুকান্তপল্লী এলাকায়। রবিবার তাদের মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক চার দিনের পুলিশ হেপাজতের নির্দেশ দেন। ঘটনার অভিযোগে জানা গেছে, মামড়া বাজারে একটি জামাকাপড়ের দোকানে অভিযুক্ত দুই যুবক একটি গামছা কিনতে যায়। দোকান থেকে একটি গামছাও কেনে তারা। কেনার সময় দোকানদারের অন্যমনষ্কতার সুযোগ নিয়ে ওই দোকানদারের ব্যবহৃত স্মার্ট ফোনটি নিয়ে ওই দুই যুবক চম্পট দেয় বলে অভিযোগ।

দোকান মালিক স্বপন বাউরি জানান,” মোবাইল ফোন খোঁজাখুঁজির পর না পাওয়ায় সন্দেহ হয়। দোকানের সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে ওই দুই যুবকের মোবাইল ফোন হাতানোর ঘটনা ধরা পড়ে। ভিডিও ফুটেজ থেকে অভিযুক্ত দুই যুবকের ছবি নিয়ে তাদের পরিচয় ও ঠিকানার খোঁজ চালানো হয়।”

অভিযুক্ত সঞ্জু সুধাকরের সন্ধান প্রথমে পায়। স্বপন বাউরি বাজারের কিছু ব্যবসায়ী ও পরিচিতদের নিয়ে ওই যুবকের বাড়িতে যায়। যুবককে বাড়ি থেকে বের করে হাত ও কোমরে দঁড়ি দিয়ে বেঁধে মোবাইল ফোনের সন্ধান জানতে চায়। অস্বীকার করায় ক্ষিপ্ত জনতা গণধোলাই শুরু করে। গনধোলাই খেয়ে অপর অভিযুক্ত বন্ধুর নাম পরিচয় স্বীকার করে। মহালক্ষী পার্ক এলাকায় অপর অভিযুক্ত যুবক রাহুল রায়ের বাড়িতে যায় উত্তেজিত জনতা। বাড়িতে অভিযুক্ত যুবক না থাকায় তার বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। খবর পেয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ।

পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে না পেয়ে তার বাবাকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে রাহুল রায় নামে আরও এক যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে,” ঘটনায় দু’জন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close