fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

২৬ জানুয়ারি মুখোমুখি, মোদি-জনসন

নয়াদিল্লি: আগামী ২৬ জানুয়ারি, ভারতের সাধারণ দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি  হিসেবে উপস্থিত থাকতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মোদি সরকার। ফলে ওইদিন মুখোমুখি হতে চলেছেন ভারত ও ব্রিটেনের দুই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বরিস জনসন।

জানা গিয়েছে, গত ২৭ নভেম্বর টেলিফোনে কথপোকথনের সময় জনসনকে সাধারণতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠান যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ জানান, মোদি। তখন মোদিকেও আগামী বছর ব্রিটেনে আয়োজিত হতে চলা জি-৭ সম্মেলনে যোগ দিতে আমন্ত্রণ জানান বরিস। এর আগে ১৯৯৩ সালে জন মেজর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠান অংশ নিয়েছিলেন।

যদিও নয়াদিল্লি এ ব্যাপারে এখনও কিছু জানায়নি। কূটনীতিদের মতে,  ব্রিটেনের সঙ্গে একটি শক্তিশালী এবং দৃঢ় সম্পর্ক গঠনের কৌশলগত লক্ষ্য পরবর্তী সময়ে ব্রিটেনের সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত করতে চাইছে নয়াদিল্লি। অন্যদিকে, আমেরিকার জো বাইডেনের নেতৃত্বে নয়া প্রশাসন আসতে চলেছে। সেই পরিস্থিতিতে পুরনো বন্ধুত্বকে ঝালিয়ে নিতে চাইছেন মোদি জনসন। ২৭ নভেম্বর জনসনের টেলিফোনে আলোচনার পর প্রধানমন্ত্রী মোদি টুইটে জানান, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তাঁর খুব ভালো বন্ধু। তাঁর সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে।

আরও পড়ুন: শক্তি বাড়িয়ে ধেয়ে আসছে সাইক্লোন বুরেভি, কমলা সতর্কতা জারি কেরলে

আগামী দশকে ভারত-ব্রিটেন সম্পর্ক আরও মজবুত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। টুইটে মোদি জানিয়েছিলেন, বাণিজ্যে, বিনিয়োগ, প্রতিরক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন এবং করোনার বিরুদ্ধে লড়াই নিয়েও আলোচনা হয়। বরিস জনসন ভারতকে ফ্রি ট্রেড এগ্রিমেন্টের অফার দিয়েছেন। একই সঙ্গে পরিবেশ বদল নিয়ে দুই দেশের মধ্যে সুদৃঢ় বোঝাপড়া ও একই সঙ্গে কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়েও আলোচনা চলছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close