fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

স্বাধীনতার ৭০ বছর পর গ্রামে উন্নয়ন হওয়ায় নরেন্দ্র মোদির মন্দির বানিয়ে পুজো করছে গ্রামবাসীরা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: স্বাধীনতার ৭০ বছর পর গ্রামে উন্নয়ন হয়েছে। সেইকারণে গত দুই বছর ধরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মন্দির বানিয়ে পুজো করছে গ্রামবাসীরা। বিহারের কাটিহারের আজমনগরের আনন্দপুর গ্রামের বাসিন্দারা রীতিমত মোদির মূর্তি তৈরি করে পুজো করছেন। মোদির একটি মন্দির নির্মাণ করা হয়েছে। সেই মন্দিরে সবাই সকাল সন্ধ্যেবেলায় নরেন্দ্র মোদির পুজো করেন এবং আরতি করেন গ্রামবাসীরা। দুই বছর আগেই এই গ্রামে নরেন্দ্র মোদির মন্দির নির্মাণ করা হয়েছিল। ওই গ্রামের মানুষ নরেন্দ্র মোদীকে উন্নয়নের দেবতা বলে মনে করেন। এই গ্রামেই রয়েছে একটি বজরংবলির মন্দির।

এই মন্দিরের ঠিক পাশেই বানানো হয়েছে মোদির নামে একটি মন্দির। গ্রামবাসীরা চাঁদা তুলে মন্দির নির্মাণ করেছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

প্রতি বছর ১৭ ই সেপ্টেম্বর নরেন্দ্র মোদির জন্মদিনে মন্দিরটিকে বেশ সুন্দর করে সাজিয়ে তোলা হয়। প্রতিটি বাড়িতে বিশেষ পুজোর আয়োজন হয়। এর সাথে সাথে গ্রামের রাস্তা-ঘাট পরিস্কার করা হয়। নরেন্দ্র মোদির জন্মদিনে ওই গ্রামে ব্যাপক হারে স্বচ্ছতা অভিযান চালানো হয়।

এই গ্রামে স্বাধীনতার সাত দশক পর্যন্ত কোনও উন্নয়ন হয়নি। গ্রামে একটিও পাকা রাস্তা ছিলনা। বিদ্যুৎ ছিলনা। জল ছিলনা। কিন্তু মোদি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে সমস্তরকম সুবিধা পেয়েছে গ্রামবাসী।

স্থানীয় বাসিন্দা মনজ কুমার সাহা বলেন, এখানে আপাতত ছোট করে নরেন্দ্র মোদীর মূর্তি রেখে পুজো করা হচ্ছে। খুব শীঘ্রই এখানে বড় একটি মন্দির বানানো হবে ওনার নামে। আর এই মন্দির বানানোর জন্য আমরা উদ্যোগ নেওয়া শুরু করে দিয়েছি। এখানকার প্রতিটি মানুষ এটাই চায় যে, ফের ক্ষমতায় আসুক বিজেপি সরকার। ফের প্রধানমন্ত্রী হোক নরেন্দ্র মোদি।

Related Articles

Back to top button
Close