fbpx
দেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

উদ্দেশ্যপ্রণোদিত… তৃণমূলের কর্মসূচিকে বানচাল করতে বিজেপির ষড়যন্ত্র, নাড্ডার গাড়ি ভাঙা প্রসঙ্গে সৌগত রায়

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তৃণমূলের কর্মসূচি বানচাল করতে বিজেপি গন্ডগোল পাকিয়েছে। তোপ দাগলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান সাংসদ সৌগত রায়। শুক্রবার তৃণমূল ভবনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘তৃণমূলের রিপোর্ট কার্ড প্রদানের দিন এই ঘটনা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’

রাজ্যজুড়ে একুশের নির্বাচনের দামামা বেজে গিয়েছে। এরই মাঝে রাজ্য সফরে দুদিনের জন্য এসেছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। বৃহস্পতিবার ডায়মন্ড হারবারে বিজেপির এক কর্মসূচিতে যাওয়ার পথে নাড্ডার কনভয়ে হামলার অভিযোগ তোলে বিজেপি। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই রিপোর্ট তলব করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

শুক্রবার দ্রুততার সঙ্গে সেই রিপোর্ট পাঠিয়ে দেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। সেখানে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি তুলে ধরেছেন রাজ্যপাল বলে জানা গিয়েছে। আর সেই রিপোর্ট হাতে পেয়ে রাজ্যের মুখ্য সচিব এবং পুলিশ প্রধানকে তলব পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। পাশাপাশি বিগত দশ বছরে পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক খুন কমেছে, দাবি সৌগত রায়ের।

পশ্চিমবঙ্গ সফররত বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলার জেরে তোলপাড় রাজ্য থেকে কেন্দ্র। আর এরপরেই এদিন তৃণমূল ভবন থেকে সাংবাদিক সম্মেলন করে ‘তৃণমূলের রিপোর্ট কার্ড প্রদানের দিন এই ঘটনা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ বলে অভিযোগ তোলেন তৃণমূল সংসদ সৌগত রায়। বিজেপিকে এক হাত নিয়ে সৌগত রায় আরও বলেন, ‘গতকাল আমাদের রিপোর্ট কার্ড পেশ হয়। তার থেকে দৃষ্টি ঘোরাতে বিজেপি এই গণ্ডগোল করে।’

২০১১ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক খুন কমেছে। এদিন এমনটাই দাবি করেছেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। পাশাপাশি তিনি আরও দাবি করে জানান, পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক হিংসা বাড়েনি।

বিধানসভা নির্বাচনের আগে একের পর এক রাজনৈতিক নেতা খুন হওয়ার পেছনে পরস্পর বিরোধী দলকে দায়ী করেছে রাজনৈতিকদলগুলি। বিজেপির একাধিক কর্মী খুনে বারবার আঙ্গুল উঠেছে রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে। কার্যত সেই দিকে ইঙ্গিত করেই এদিন পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক হিংসা তৃণমূলের শাসনকালে কমেছে বলেই এদিন দাবি করলেন তিনি।

তথ্য দিয়ে এদিন সৌগত বাবু বলেন, “২০০১ থেকে ২০১১ পর্যন্ত রাজনৈতিক খুনের সংখ্যা ছিল ৬৭০। ২০১১ থেকে ২০২০ কমে সেই সংখ্যা হয়েছে ১৫০। প্রেমে ব্যর্থ হয়ে, আর্থিক অনটনে কেউ যখন আত্মহত্যা করেছে বিজেপি তখন বলছে তৃণমূল তাদের কর্মীকে খুন করেছে”। অন্যদিকে, গতকাল দিল্লিতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে যে আক্রমণ করা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা করেন এই তৃণমূল সাংসদ।

একইসঙ্গে তাঁর দাবি, তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে দুয়ারে সরকার কর্মসূচির মত বৃহৎ কর্মসূচি কোথাও হয়নি। তিনি উল্লেখ করেন, এখনও পর্যন্ত ৫৬ লাখ লোক দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে এসেছে এর মধ্যে ৬০% স্বাস্থ্য সাথীর জন্য আবেদন করেছে। ১৫ ডিসেম্বরে দ্বিতীয় দফার ক্যাম্প চালু হবে। চলবে ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

Related Articles

Back to top button
Close