fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

স্বামী বিবেকানন্দ স্টেডিয়ামে ৪৫ শয্যার সেফ হোমের উদ্বোধন করলেন সাংসদ শান্তনু সেন

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা । মোট কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় বর্তমানে সাড়ে ১২ হাজার পেরিয়েছে । উত্তর ২৪ পরগনা জেলার খড়দহে এবার  কোভিড উপসর্গ আছে, এরকম রোগীদের চিকিৎসার জন্য সেফ হোমের উদ্বোধন হল । রাজ্যসভার তৃণমূল সাংসদ ডা: শান্তনু সেন খড়দহের বিবেকানন্দ স্টেডিয়ামে ৪৫ শয্যার এই সেফ হোমের উদ্বোধন করেন । সোমবার থেকেই এই সেফ হোমে রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে ।
উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত রাজ্য প্রশাসন । বর্তমানে রাজ্যে কলকাতার পরেই কোভিড সংক্রমণের হার সব থেকে বেশি উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় । এই জেলার বিভিন্ন পুরসভা এলাকায় কোভিড রোগীদের সংখ্যা বেড়েছে । এই পরিস্থিতিতে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে তৈরি করা হয়েছে বেশ কয়েকটি সেফ হোম । দিন কয়েক আগেই নৈহাটি বঙ্কিমাঞ্জলি ফুটবল স্টেডিয়ামে চালু করা হয়েছে সেফ হোম । সেখানে ৭২ জন রোগী ছিল । এবার উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহের বিবেকানন্দ স্টেডিয়ামে সেফ হোমের উদ্বোধন করলেন রাজ্যসভার সাংসদ তথা আই এম এ সভাপতি ডা: শান্তনু সেন । সোমবার দুপুরে ফিতে কেটে খড়দহের বিবেকানন্দ স্টেডিয়ামে এই সেফ হোমের উদ্বোধন করেন ডা: শান্তনু সেন । তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ব্যারাকপুরের নগরপাল মনোজ ভার্মা, খড়দহ পুরসভার পৌর প্রশাসক কাজল সিনহা সহ অন্যান্যরা ।
এই সেফ হোমের উদ্বোধন করে ডা: শান্তনু সেন সাংবাদিকদের বলেন, “রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে ভাবে কোভিড রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন তা গোটা দেশের কাছে দৃষ্টান্ত । সেই কারনেই আজকের দিনে দাঁড়িয়েও বাংলা কোভিড সংক্রমণের দিক দিয়ে মহারাষ্ট্র, দিল্লি, উত্তর প্রদেশ, রাজস্থান, অন্ধ্রপ্রদেশের থেকেও পিছিয়ে অর্থাৎ ভাল জায়গায় রয়েছে । রাজ্যে বর্তমানে দৈনিক ১৬ হাজার কোভিড টেস্ট করা হচ্ছে, এই সংখ্যাটা আগামী আগস্ট মাসে দৈনিক ২৫ হাজার হবে । রাজ্যে কোভিড উপসর্গ আছে এরকম মানুষদের সুচিকিৎসার জন্য সেফ হোমের ব্যবস্থা করা হচ্ছে । সেফ হোমে থেকেও বহু রোগী সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন । কেন্দ্রীয় সরকার কোভিড চিকিৎসায় রাজ্যকে কোন ভাবেই সাহায্য করেনি । তা স্বত্বেও রাজ্যে কোভিড রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে । আগামীদিনে বাংলা এই সমস্যা কাটিয়ে উঠবে ।”
খড়দহের বিবেকানন্দ স্টেডিয়ামে যে সেফ হোমের ব্যবস্থা করা হয়েছে, সেখানে বর্তমানে ৪৫ জন পুরুষ ও মহিলা রোগী থাকতে পারবে । জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে খুব শীঘ্রই এই সেফ হোমে ৭০ জনকে রাখার ব্যবস্থা করা হবে । এদিকে নৈহাটিতে সেফ হোমে যে ৭২ জন রোগী ছিল, তাদের মধ্যে ৬ জন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন বলে নৈহাটি পৌরসভা সূত্রের খবর ।

Related Articles

Back to top button
Close