fbpx
কলকাতাহেডলাইন

মেট্রো চললে একাধিক বিধিনিষেধ, নির্দিষ্ট সংখ্যক যাত্রী হয়ে গেলে খুলবে না স্টেশনের গেট

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন , মেট্রো চাইলে ১ জুলাই থেকে পরিষেবা শুরু করতে পারে। মুখ্যমন্ত্রী চাইছেন যত আসন ততজন যাত্রী নিয়েই ছুটুক মেট্রো। এ বিষয়ে পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করবেন। মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর মেট্রো কিছু পরিকল্পনা করছে পরিষেবা শুরু হলে কীভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা যাবে। সূত্রের খবর, মেট্রো চালু হলে প্রত্যেক কামরায় মাত্র ৫৪ জন যাত্রী থাকবেন, গোটা ট্রেনে সংখ্যাটা ৪৩২ জন। সংখ্যাটা পূর্ণ হয়ে গেলে আর কেউ ট্রেনে উঠতে পারবেন না।

প্রশ্ন হলো কিভাবে যাত্রীদের ভিড় নিয়ন্ত্রণ করা হবে? জানা গিয়েছে মেট্রোর স্টেশনের বাইরে যাত্রীদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে লাইন দিতে হবে। প্রতি স্টেশনে যতোজন যাত্রী নামবেন, ততোজন যাত্রীই ট্রেনে উঠবেন। নির্দিষ্ট সংখ্যক যাত্রী হয়ে গেলে স্টেশনের গেট বন্ধ করে দেওয়া হবে। এই লাইন তদারকি করতে হবে কলকাতা পুলিশকে। স্টেশনে ঢোকার বেরোনোর আলাদা গেট থাকবে। আর মেট্রোর কর্মীদের সঙ্গে যাতে যাত্রীদের শারীরিক সংস্পর্শ এড়ানো যায় সেইজন্য টোকেন ব্যবস্থা তুলে দেওয়া হবে। শুধু স্মার্ট কার্ডই ব্যবহার করতে পারবেন যাত্রীরা।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্তদের জন্য ১৩ হাজারের বেশি বেড রেডি, জানালেন কেজরিওয়াল

তবে মেট্রোর সবচেয়ে বড়ো মাথাব্যথা প্রত্যেক কামরায় কতোজন যাত্রী উঠছে তা গোনার মতো আরপিএফ মেট্রোর নেই। তাই যাত্রীদের সচেতনতার উপরই ভরসা করতে হবে মেট্রোকে। মেট্রোর মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক ইন্দ্রানী বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য জানিয়েছেন, ‘ রাজ্যের তরফে আমাদের কিছু জানানো হয়নি। আগেতো রাজ্য সরকার বিষয়টি রেলবোর্ডকে জানাবে। রেলবোর্ড সবুজ সংকেত দিলে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠক করে আমরা রূপরেখা ঠিক করবো।’

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন জুলাই থেকে চালু হোক মেট্রো। আবার রাতে রেলমন্ত্রকের তরফে জানানো হয় রাজ্য সরকার মেট্রো চালু করতে চেয়ে চিঠি পাঠালে তবেই চালু হবে কলকাতা মেট্রো। কিন্তু এই টানাপোড়েনের মাঝে সব থেকে বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়াচ্ছে মেট্রো চালু হলেও আদৌ কী তাতে সমস্যার কোনও সুরাহা হবে!

Related Articles

Back to top button
Close