fbpx
কলকাতাহেডলাইন

রিজেন্ট পার্কে প্রেমিকাকে গুলি করে খুন প্রেমিকের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: প্রেমিক বিবাহিত এবং তাঁর স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা, এই দুটি বিষয় না জেনেই রিজেন্ট পার্ক পশ্চিম আনন্দপালিত রোডের বাসিন্দা যুবকের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন বছর কুড়ির কলেজছাত্রী। কিন্তু এই দুটি সত্য সামনে আসতেই সম্পর্ক শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর এই সিদ্ধান্ত পছন্দ হয়নি বিবাহ বর্হিভূত সম্পর্কের স্বাদ পাওয়া ওই যুবকের। আর তার জেরেই সোমবার সকাল আটটা নাগাদ বাড়িতে ঢুকে শোওয়ার ঘরে ঘুমন্ত তরুণীকে গুলি করে খুন করে চম্পট দিল যুবক।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত তরুণীর নাম প্রিয়াঙ্কা পুরকাইত (২০)। জানা গিয়েছে, এলাকারই বিবাহিত যুবক জয়ন্ত হালদারের সঙ্গে প্রেম ছিল প্রিয়াঙ্কার। জয়ন্ত প্রিয়াঙ্কার জামাইবাবুর পূর্ব পরিচিত। সেই সূত্রেই প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে তার সম্পর্ক হয়। কিন্তু নিজের বিবাহিত অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর বিষয়ে সমস্ত তথ্য গোপন করে যান ওই অভিযুক্ত যুবক। কিন্তু পরে ওই তরুণী জানতে পেরে প্রতারিত হয়েছেন মনে করে সরে আসেন। কিন্তু এভাবে সম্পর্ক শেষ করে দেওয়া পছন্দ হয়নি জয়ন্তর। প্রতিশোধ নিতে সোমবার সকাল আটটা নাগাদ পকেটে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে সোজা তরুণীর বাড়িতে ঢুকে পড়েন তিনি। বাড়ির মেন গেট খোলা থাকায় তাঁর ঢুকতে অসুবিধা হয়নি।

তারপর সোজা শোওয়ার ঘরে চলে যান ওই যুবক। তারপর বিছানায় ঘুমন্ত তরুণীকে লক্ষ্য করে গুলি চালান। গুলিবিদ্ধ হয়ে বিছানাতেই মৃত্যু হয় ওই তরুণীর। এরপরে ঘটনাস্থল থেকে চম্পট দেন ওই যুবক। গুলির আওয়াজ শুনে পাড়ার লোকেরা ছুটে এসে দেখে, বিছানার রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে প্রিয়াঙ্কা। পাশেই স্তম্ভিত, ভয়ে কুঁকড়ে যাওয়া তার মা, পিসিরা ও ভাই। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবাক রিজেন্ট পার্কের আনন্দ পল্লির বাসিন্দা। খবর পাওয়ামাত্রই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশবাহিনী। তরুণীর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত পাঠানো হয়েছে।

পরিবারের দাবি, জয়ন্তর আসল সত্যি জেনে যাবার পর স্ত্রীয়ের সঙ্গে যে সম্পর্ক ভালো নয়, সেকথাই বারবার প্রিয়াঙ্কাকে বোঝাত জয়ন্ত। কিন্তু সম্প্রতি প্রিয়াঙ্কা জানতে পারে, জয়ন্তর স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা। এরপরই নিজের ভুল বুঝতে পেরে সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চায় প্রিয়াঙ্কা। জয়ন্তর সঙ্গে যোগাযোগও কমিয়ে দেয়। কিন্তু ঘটনার কয়েকদিন আগেই নাকি জয়ন্ত বাড়ি এসে প্রিয়াঙ্কাকে হুমকি দিয়ে যায়। সম্পর্ক না রাখলে পরিবারের সবাইকে খুন করে দেবে বলে শাসিয়ে যায়। এমনকি তার ফোনও নিয়ে চলে যায়। এরপরই শনিবার সকালে ঘরে ঢুকে খুন করে পালায় সে। পরিবারের আফসোস, সেই সময় থানায় খবর দিলে, আজকে এভাবে খুন হতে হত না প্রিয়াঙ্কাকে!

আরও পড়ুন: বেসরকারি স্কুলে ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে উত্তাল কলকাতা

এদিকে, সোমবারই প্রথম সন্তানের জন্ম দিতে চলেছেন রিজেন্ট পার্কের কলেজছাত্রী খুনে ধৃত প্রেমিক জয়ন্ত হালদারের স্ত্রী। স্বামীর গোপন প্রেমের কথা জানতেন স্ত্রীও। কিন্তু সব জেনেই আপোস করে নিয়ে ভেবেছিলেন, বাচ্চা হলে বোধহয় বদলে যেতে পারে জয়ন্তর মন। বাড়িতে অনেকবার বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তাদের প্রথম সন্তান পৃথিবীতে আসার আগেই প্রেমিকাকে খুনের অভিযোগ উঠল তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে।

জয়ন্তের স্ত্রী আরও জানান, শুক্রবার রাতেও স্বাভাবিক আচরণ ছিল জয়ন্তের। রাতে খাওয়ার পর তাঁর পাশেই শুয়ে পড়েন। কিন্তু সকালে যে স্বামী কখন বেরিয়ে গিয়েছিলেন, তা জানতেও পারেননি তাঁর স্ত্রী! পরে প্রতিবেশীদের মুখে প্রিয়াঙ্কা খুন হওয়ার খবর পান। এ দিন তিনি বলেন, “ওর কঠিন থেকে কঠিনতম শাস্তি হোক।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close