fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নিম্ন মানের খাদ্য সামগ্রী ও কম রেশন দেওয়ার অভিযোগে উত্তাল মুর্শিদাবাদ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কম রেশন বিলি ও খাদ্য সামগ্রীর মান নিয়ে অগ্নীগর্ভ মুর্শিদাবাদ। শনিবার সকালে রেশন ডিলারের বাড়িতে হামলা চালায় গ্রামবাসীরা। বাড়ির সামনে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে তারা। ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ।মূল অভিযোগ খাদ্য সামগ্রীর সুষম বন্টন হচ্ছে না। আবার অনেকেই অভিযোগ করছেন যে খাদ্য সামগ্রীর মান খুব খারাপ। এই দুই অভিযোগকে সামনে রেখেই রাজ্যের নানা জেলাতেই লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে রেশন নিয়ে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। কিন্তু এবার তাতেই স্পষ্ট রাজনৈতিক ইন্ধন তথা চক্রান্তের ছবি ফুটে উঠত শুরু করল মুর্শিদাবাদের মাটিতে।

জানা গিয়েছে এদিন সকাল ৭টা থেকে সালারের এক রেশন ডিলারের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ শুরু হয়। বাড়ি লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছোঁড়ার পাশাপাশি সামনের দিকে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। সেই সঙ্গে শুরু হয় ভাঙচুর। প্রাণ বাঁচাতে অন্যত্র পালিয়ে যান রেশন ডিলার ও তাঁর পরিবার। কার্যত এই মারমুখী চেহারায় বলে দিচ্ছে যে এই ঘটনা নিছক ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ নয়, এর পিছনে কাজ করছে পূর্ব পরিকল্পিত চক্রান্ত। আবার এদিনই প্রায় একই ছবি ধরা পড়েছে মুর্শিদাবাদ জেলারই লালগোলায়। সেখানেও এক রেশন ডিলারের দোকান ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখান ডিলাররা। এদিন দুই জায়গাতেই অভিযোগ উঠেছে রেশনের সামগ্রী কম দেওয়া যেমন হচ্ছে ঠিক তেমনি খারাপ মানের জিনিস দেওয়া হচ্ছে। সালারের বিক্ষোভকারীদের বক্তব্য, যে পরিমাণ রেশন পাওয়ার কথা ছিল, তাঁরা তা পাচ্ছেন না। রেশন ডিলার কম রেশন দিয়ে চলেছেন। অভিযোগ করেও ফল পাননি। সেই কারণেই এদিন সকালে বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন তাঁরা। আবার লালগোলার বিক্ষোভকারীদের দাবি, খাবারের অযোগ্য চাল দিচ্ছেন রেশন ডিলার। ভাল চালের সঙ্গে খারাপ-পোকা ধরা চাল মিশিয়ে দেওয়া হচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরে অভিযোগ জানিয়েও লাভ হয়নি। তাই এদিন রেশন দোকান ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছে এলাকার বাসিন্দারা।

আরও পড়ুন: তথ্য গোপন বন্ধ করে, দুই সরকার এক সিদ্ধান্তে আসুন: সুজন

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। প্রথমে তাঁদের ঢুকতে বাধা দেওয়া হলেও আপাতত তাঁরা ভিড় সামলানোর চেষ্টা করছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বিশাল পুলিশ বাহিনী পাঠানো হচ্ছে। এদিকে ইতিমধ্যেই সেখানে হাজির হয়েছেন বিডিও।এদিন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানিয়েছেন, ‘সিপিএম এবং কংগ্রেসের মদতেই এই ঘটনা ঘটেছে। তিনি বলেন, ‘যতটা সম্ভব, ততটাই রেশন দেওয়া হচ্ছে। একদিনে বেশি পরিমাণ রেশন দেওয়া সম্ভব নয়। এধরনের ঘটনা ঘটলে রেশন দোকান বন্ধই রাখা হবে। এই সব ঘটনার পিছনে বিরোধীদের চক্রান্ত রয়েছে। এই ঘটনার পরে মুর্শিদাবাদের জেলাশাসক জগদীশ প্রসাদ মিনা জানান, ওই রেশন ডিলারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close