fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ ব্যবসায়ী, তদন্তে পুলিশ

মিলন পণ্ডা, পূর্ব মেদিনীপুর:  রহস্যজনক ভাবে এক ব্যবসায়ী নিখোঁজ হয়ে যাওয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পটাশপুর থানার পঁচেটের উত্তরপাড়া গ্রামের ইলেকট্রিক দোকানের মালিক গুরুপদ দাস গত সোমবার সন্ধ্যা থেকে রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়। তিন দিন অতিক্রান্ত হয়ে যাওয়ার পরও ওই নিখোঁজ ব্যবসায়ী কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত বাড়ি না ফিরলে পরিবারের লোকেরা থেকে প্রতিবেশীরা গুরুপদ খোঁজ শুরু করেন। কিন্তু গুরুপদ বাবুর কোথাও সন্ধান পাওয়া যায়নি। অবশেষে একটি ঝোঁপ থেকে গুরুপদ বাবুর মোটর বাইকটি দেখতে পায় প্রতিবেশীরা। এই ঘটনার পর রহস্য ক্রমশ ঘৃনীভূত হতে থাকে। অপহরনের পর হত্যা করে মৃতদেহটি গুম করে দেওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিতে পারছে না স্থানীয় বাসিন্দারা। এই ঘটনার পর নিখোঁজ ব্যবসায়ীর স্ত্রী পটাশপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পটাশপুর থানার পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পটাশপুর ২ ব্লকের পঁচেট উত্তরপাড়া এলাকায় গুরুপদ দাস খাড় বাজারে একটি ইলেকট্রিক দোকান রয়েছে। দোকান বন্ধ করেও গুরুপদ বাবু বাড়ি ফিরে আসেনি। গভীর রাত পর্যন্ত পরিবারের লোকেরা অপেক্ষা করলেও কিন্তু গুরুপদ বাবুর কোন সন্ধান পায়নি। মোবাইল ফোন করা হলে সুইচ অফ। পরের দিন সকালে বিষবটি প্রতিবেশীদের জানায় তার পরিবারের লোকেরা। প্রতিবেশী ও পরিবারের লোকেরা খোঁজাখুঁজি করার পর স্থানীয় নির্জন ঝোঁপ থেকে গুরুপদবাবুর বাইক দেখতে পায়। চুরি-ডাকাতি হলে বাইক ফেলে যেতো না দুষ্কৃতিকারী যুবকরা এমনটা অনুমান স্থানীয় বাসিন্দাদের।

নিখোঁজ ব্যবসায়ী ছেলে রবীন্দ্র দাস বলেন, সোমবার রাতে দোকানে থাকাকালীন বাবা আমাকে জানায় তুই বাড়ি চলে যায়। আমি দোকান বন্ধ করে যাচ্ছি। আমি দোকান থেকে এসে খেয়ে ঘুমোতে চলে যাই। গভীর রাতে মা এসে জানায় বাবা এখনও বাড়ি ফেরেনি। ফোন করলে সুইচ অফ। তখন আমিও ফোন করে দেখি বাবার মোবাইলে সুইচ অফ। পরের দিন সকালে প্রতিবেশী ও নিজেরা গিয়ে খোঁজাখুঁজি করার পর নির্জন এলাকায় ঝোঁপ থেকে বাবার বাইকটি পড়ে থাকতে দেখি। তারপরে বাবা নিখোঁজের ঘটনায় পটাশপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। ব্যাবসা বা পারিবারিক ক্ষেত্রে বাবার সঙ্গে কারো কোন সমস্যা ছিল না বলে ছেলে রবীন্দ্র দাবি। এ বিষয়ে পটাশপুর থানা ওসি চন্দ্রকান্ত শাসমল বলেন নিখোঁজ অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। মোবাইল ফোনের টাওয়ার লোকেশন সূত্র ধরে ব্যবসায়ী সন্ধান চালানোর হচ্ছে। ব্যবসায়ী বা পারিবারিক কারণে কোনো সমস্যা ছিল কি-না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close