কলকাতাদেশপশ্চিমবঙ্গবাংলাদেশহেডলাইন

শান্তনুর উদ্যোগে মার্চে ওড়াকান্দি সফরে মোদি!

ইন্দ্রাণী দাশগুপ্ত, নয়াদিল্লি: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস হওয়ার পরে সব থেকে বেশি উপকৃত হবেন বাংলাদেশ থেকে আসা শরণার্থী বাঙালিরা। যার মধ্যে সিংহভাগ জুড়ে আছেন মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষজন।এই মতুয়া ভাবাবেগকে উস্কে দিতে আগামী মার্চ মাসের মাঝামাঝি বাংলাদেশের ওড়াকান্দিতে মতুয়া ধর্মের প্রবক্তা শ্রীহরিচাঁদ ঠাকুরের জন্মস্থান পরিদর্শনে যেতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মূলত মতুয়া ঠাকুর বাড়ির বংশধর সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর এই সফর বলে জানা যাচ্ছে সূত্রের মাধ্যমে।

বাংলাদেশের ওড়াকান্দিতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন মতুয়া ধর্মের প্রবক্তা হরিচাঁদ ঠাকুর। এবং মূলত ওড়াকান্দি থেকেই মতুয়া ধর্মের প্রচার এবং প্রসার শুরু করেন তিনি। সমাজ বিবর্তনের লক্ষ্যে এবং সমাজের পিছিয়ে পড়া শ্রেণিকে পাদপ্রদীপের আলোয় এনে তাদের সমাজের মূলস্রোতে যুক্ত করার জন্যই হরিচাঁদ ঠাকুরের এই ধর্মের প্রবর্তন। এখনও পর্যন্ত ওড়াকান্দিতে কোনও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী সফর করেননি। সেদিক থেকে দেখতে গেলে ভারতবর্ষে মতুয়াদের উন্নয়নের ক্ষেত্রে এই সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ  বলে মনে করছে মতুয়া ধর্মালম্বী মানুষেরা।

আরও পড়ুন: জনসংযোগের অভাবেই দিল্লিতে হার, মত দিলীপ ঘোষের

এই প্রসঙ্গে মতুয়া মহা সংঘের কর্মাধিপতি  সাংসদ  শান্তনু ঠাকুর জানালেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস করে বাংলাদেশ থেকে আসা কোটি কোটি মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষকে নাগরিকত্ব দিয়ে ভারতে ভালোভাবে বাঁচার অধিকার দিয়েছেন। সমগ্র মতুয়া মহাসংঘ তার কাছে কৃতজ্ঞ । সেই জায়গা থেকেই আমি প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছিলাম বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সফরের সময় ওড়াকান্দিতে আমাদের ধর্মের প্রবক্তা শ্রী হরিচাঁদ ঠাকুরের জন্মভিটা একবার পরিদর্শন করতে। প্রধানমন্ত্রী আমার বক্তব্য শুনেছেন এবং সফরসূচিতে ওড়াকান্দি বিষয়টি রাখবেন বলে জানিয়েছেন। এর আগেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বনগাঁয় আমাদের ঠাকুর বাড়িতে এসেছিলেন এবং আমার ঠাকুমা এবং মতুয়া মহাসংঘের বড়মা বীণাপাণি দেবী কে সশ্রদ্ধ প্রণাম জানিয়ে তাঁকে কথা দিয়েছিলেন যে মতুয়াদের তিনি ভারতীয় নাগরিকত্ব দেবেন।

আরও পড়ুন: জনগণের রায়কে সম্মান জানায় বিজেপি: জগত প্রকাশ নাড্ডা

সরকারে আসার পর তিনি তার প্রতিশ্রুতি রেখেছেন। সেই কারণেই সমগ্র সমাজের পক্ষ থেকে আমি প্রধানমন্ত্রীকে ওড়াকান্দি সফরের জন্য অনুরোধ করেছি। কারণ আমি মনে করি প্রধানমন্ত্রী যদি হরিচাঁদ ঠাকুরের বাসস্থানে যান  তাহলে তিনি আরও ভালোভাব আমাদের মতুয়া ধর্মের নীতি-আদর্শ এবং উদ্দেশ্য সম্বন্ধে অবগত হবেন, যা ভবিষ্যতে ভারতে মতুয়া ধর্মের এবং ধর্মালম্বী মানুষদের উন্নয়নের কাজে লাগবে বলেই আমার ধারণা।

Related Articles

Back to top button
Close