fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মনীশ হত্যাকান্ডে দুবাই-যোগ? উঠে এল নয়া তথ্য!

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: বিজেপি নেতা মণীশ হত্যাকাণ্ডের পিছনে যে কয়েক মাসের প্ল্যানিং ছিল, তা ধৃতদের জেরা করে আগেই জানতে পেরেছিল সিআইডি। এবার ধৃতদের জেরা করে পরতে পরতে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য পাচ্ছেন সিআইডির তদন্তকারীরাও। ব্যক্তিগত শত্রুতাকে কাজে লাগিয়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য দুবাই থেকে টাকা আনিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র কিনে ভিন রাজ্য থেকে সুপারি কিলার আনা হয়েছিল, ঘটনার তদন্তে নেমে এমনটাই জানতে পেরেছেন গোয়েন্দারা।

প্রসঙ্গত, বহুকাল আগে মহম্মদ খুররমের বাবাকে খুনে মণীশের নাম জড়ানোর পর থেকেই তাকে খুন করার জন্য পরিকল্পনা করছিল খুররম। কিন্তু তার একার পক্ষে এই খুন করা সম্ভব ছিল না। সেই কারণেই রাজনৈতিক যোগাযোগ বাড়ায় খুররম। এদিকে বিজেপি ওই নেতার প্রভাব এলাকায় বাড়তে থাকায় তাকে চিরতরে সরিয়ে দেওয়ার জন্য মহম্মদ খুররমকে গুরুত্ব দিতে শুরু করে রাজনৈতিক নেতারাও।

জানা গিয়েছে, পটনার সেন্ট্রাল জেলে বন্দি কুখ্যাত এক দুষ্কৃতীর সাহায্য নেওয়া হয়েছিল আগ্নেয়াস্ত্র এবং সুপারি কিলার ভাড়ার করার জন্য। এর জন্য দুবাই থেকে অর্থও এসেছিল এক রাজনৈতিক প্রভাবশালী নেতার মাধ্যমে। সেই টাকা দিয়েই কেনা হয়েছিল আগ্নেয়াস্ত্র। এমনকি ভিনরাজ্যের সুপারি কিলারদের ভাড়া করার ব্যবস্থাও করে দেয় ওই জেলবন্দি দুষ্কৃতীই। দুবাই থেকে টাকা আসার পর সুপারি কিলার এবং আগ্নেয়াস্ত্রের টাকা মেটানোর দায়িত্ব ছিল মুহাম্মদ খুররমের। ধৃত ৪ জনের মধ্যে মহম্মদ খুররম খান এবং তৃণমূল নেতা ঘনিষ্ঠ সুবোধ যাদবকে জেরা করে এরকম বেশিরভাগ তথ্যই হাতে এসেছে বলে দাবি তদন্তকারীদের।

Related Articles

Back to top button
Close