fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

করোনাভাইরাসের টিকা আবিষ্কার! দাবি এই দেশের বিজ্ঞানীদের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ করোনা ভাইরাসের জেরে জর্জরিত গোটা মানবজাতি। গোটা বিশ্বে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃতের সঙ্খ্যা। এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রায় তিন মাস বা কোথাও কোথাও তারও বেশি সময় ধরে চলছে লড়াই। দেশজ বিভিন্ন উপায়ে ঠেকিয়ে রাখা হচ্ছে এই রোগকে। কিন্তু ওষুধ না পাওয়া অব্দি নিস্তার নেই। সাধারণ মানুষের মনেও নেও স্বস্তি। তাই ভরসার মুখ বিজ্ঞানীরা। কিছু দিন আগে রাশিয়া, ব্রিটেন বা ইজরায়েলের মতো দেশ থেকে মিলছিল ভালো খবর মেলার সংকেত। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হল নাইজেরিয়ার না। একদল নাইজিরীয় বৈজ্ঞানিক দাবি করেছেন, করোনা ভাইরাসের টিকা খুঁজে পেয়েছেন তাঁরা।

 

 

শুক্রবার নাইজেরিয়ান ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীরা ঘোষণা করেন, সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রায় ৪ লক্ষ ৬৫ হাজারের বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন। সেই পরিস্থিতিতে কোভিড ১৯-এর ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছেন তাঁরা। তবে এই ভ্যাকসিন আপাতত আফ্রিকায় আক্রান্তদের জন্য ব্যবহার করা হবে। এরপরে বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলির কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে বলে
জানিয়েছেন ওই বিশেষজ্ঞরা। ভ্যাকসিন আবিস্কারক দলের প্রধান গবেষক ও মেডিক্যাল ভাইরোলজি স্পেশালিস্ট ড. ওলাদিপো কোলাওলে একটি সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছেন, টিকাটির নামকরণ এখনও হয়নি। নামহীন এই টিকাটি শুধুমাত্র আফ্রিকার মানুষদের জন্য তৈরি করা হয়েছে। তবে পরে পরে এই টিকা সারা বিশ্বের ছড়িয়ে পড়বে। তিনি বৈঠকে আরও জানান, ‘দলের গবেষকরা আফ্রিকার বিভিন্ন এলাকায় কোভিড ১৯ জিনোম সিকোয়েন্স সংগ্রহ করেন। সেটার ভিত্তিতেই তৈরি হয়েছে এই টিকা। এধরণের বৈশ্বিক মহামারীর সমাধান খুঁজে পাওয়াটা আমাদের আবেগের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে। ভ্যাকসিনটি একেবারে খাঁটি। এটা ভুয়ো হতে পারে না। বেশ কয়েকবার যাচাইয়ের পরই বিশ্বের সামনে এই ঘোষণা করতে এগিয়ে এসেছি।’

 

 

 

তিনি জানিয়েছেন, ভ্যাকসিনটি আপাতত আফ্রিকার মানুষদের কথা মাথায় রেখেই বৈজ্ঞানিক প্রচেষ্টা চালিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তবে সুফল মিললেই দেওয়া হবে করোনা আক্রান্ত দেশগুলিকে। তবে নামহীন এই ভ্যাকসিনটি বিশ্বের সামনে মুক্তি পেতে আরও ১৮ মাস সময় লাগবে। চিকিত্‍সক কোলাওলে জানিয়েছেন, বিশ্ববাসীর জন্য এখনও দরকার আরও পরীক্ষা, পড়াশোনা, মেডিক্যাল বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে লাগাতার পরামর্শ ও অনুমতির পর এই ভ্যাকসিন সকলের কাছে পৌঁছে দেওয়া যাবে।

Related Articles

Back to top button
Close