fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

পরিযায়ী শ্রমিক-কৃষক- হকারদের জন্য প্যাকেজ ঘোষণা সীতারামনের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘোষিত ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের দ্বিতীয় পর্যায়ের ঘোষণা হল বৃহস্পতিবার। সাংবাদিক সম্মেলনে এই বিষয়ে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। এই পর্যায়ে পরিযায়ী শ্রমিক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও হকার এবং প্রান্তিক কৃষকদের জন্য ঘোষণা হয়েছে। এ দিন মোট ৯ টি প্যাকেজ নতুন ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী। তার মধ্যে তিনটি ব্যাবস্থাই ছিল পরিযায়ী শ্রমিকদের কথা মাথায় রেখে।তিনি জানালেন, দেশের যে কোনও প্রান্ত থেকে যাতে পরিযায়ী শ্রমিক বা দরিদ্র মানুষের প্রয়োজনীয় রেশন পান, তার জন্য ব্যবস্থা করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। কৃষি ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য রাজ্যগুলিকে ৬৭০০ কোটি টাকার প্যাকেজ দেওয়া হচ্ছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের কেন্দ্রীয় তহবিলের টাকা রাজ্যগুলিকে ১১ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হচ্ছে।

নির্মলা সীতারমন জানিয়েছেন, রেশন ব্যবস্থায় এই এক দেশ, এক রেশন কার্ডের আওতায় আগামী আগস্ট মাসের মধ্যে দেশের একটা বড় অংশে গ্রাহককে নিয়ে আসতে পারবে কেন্দ্রীয় সরকার। তারপর আগামী মার্চ, ২০২১ সালের মধ্যে দেশের রেশন ব্যবস্থার সম্পূর্ণ বদল করে ফেলা হবে বলেই জানিয়েছেন তিনি। এর ফলে দেশের ৬৭ কোটি মানুষ উপকৃত হবেন, যাঁরা ২৩ রাজ্যের বাসিন্দা। পাবলিক ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেমের ৮৩ শতাংশ এর আওতায় এসে পড়বে। এছাড়াও এদিন অর্থমন্ত্রী বলেন, মূল্যে খাদ্য শস্য দেওয়া হবে আগামী দু’মাসে। খাদ্য সুরক্ষা আইন ও রেশন কার্ড ছাড়াও পরিযায়ী শ্রমিকরা বিনামূল্যে ৫ কেজি খাদ্যশস্য (চাল/গম) পাবেন ৮ কোটি শ্রমিক। এই খাদ্যশস্যের সরবরাহের দায়িত্ব দেওয়া হবে রাজ্যকে।

আরও পড়ুন: ভিনরাজ্যে আটকে থাকা বাংলার মানুষদের ফেরাতে ১০৫টি ট্রেনের ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

২৫ লক্ষ নতুন কিষাণ ক্রেডিট কার্ডে কৃষিঋণ দেওয়া হবে। গৃহ নির্মাণ শিল্পের জন্য একটি প্যাকেজ করা হয়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য তিনটি প্যাকেজ গ্রহণ করা হয়েছে। মুদ্রা ঋণ খাতে আরো ধার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মার্চ এপ্রিলে ৬৩ লক্ষ কৃষককে ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এছাড়াও ক্ষুদ্র কৃষকদের জন্য আলাদা করে দুটি প্যাকেজ নেওয়া হয়েছে। জানালেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। কেন্দ্রের আর্থিক প্যাকেজের দ্বিতীয় দফায় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন বলেন, ফুটপাতের হকার দের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার প্যাকেজ তৈরি করেছে। রাস্তার ছোট ব্যবসায়ীদের সুবিধা দিচ্ছে কেন্দ্র। আগামী এক মাসের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার এঁদের ৫০০০ কোটি টাকার ঋণ দেবে। তাঁদের ১০ হাজার টাকা সর্বোচ্চ আর্থিক সহায়তা করা হবে। মৎসজীবী ও প্রাণীসম্পদ ক্ষেত্রের কৃষকেরাও ‘কিষাণ ক্রেডিট কার্ডে’র সুবিধা পাবেন। এর ফলে তারা অনেক সুবিধা পাবেন।  ৩০ হাজার কোটি টাকার অতিরিক্ত তহবিল নাবার্ডের মাধ্যমে দেওয়া হবে কৃষকদের। বার্ষিক ৯০ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হয়। এই অতিরিক্ত টাকা রবি ফসলের কৃষিকাজে ব্যবহার করা হবে।

পরিযায়ী শ্রমিকদের সহজ ভাড়ায় থাকার জায়গা দেবে কেন্দ্র। এর জন্য রাজ্যের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করবে কেন্দ্র। পাশাপাশি, পিপিপি মডেলেও করা হবে এই আবাসন। তাঁর কথায় যাঁরা ঘরে ফিরেছেন তাঁদের জন্য ইতিমধ্যেই ১৪ কোটি ৬২ হাজার জনকে কাজ দেওয়া হয়েছে গিয়েছে। তিনি মনে করিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনার অধীনে ১০০ দিনের কাজে জড়িতদের ভাতা ১৮২ টাকা থেকে ২০২ টাকা করা হয়েছে ইতিমধ্যেই। এ দিন আরও জানানো হয়েছে, সব মজুর ভবিষ্যতে যাতে নিয়োগপত্র পান তা নিশ্চিত করা হবে। যাঁরা ঝুঁকিমূলক কাজ করেন, তাঁদের স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখার জন্য বিশেষ ব্যবস্থাপনা করা হবে। অর্থমন্ত্রীর আশ্বাস, ১০০ দিনের কাজে জড়িত মহিলারা যাতে রাতে নিরাপদে কাজ করতে পারেন তা নিশ্চিত করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close