fbpx
দেশহেডলাইন

লালুর আমলে মহিলাদের হেলাফেলা করা হত, কেউ তাদের ইস্যুর দিকে ফিরেও তাকাতেন না: নীতীশ কুমার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ভোটের আবহ বিহারে। ইতিমধ্যেই প্রথম পর্যায়ের ভোট শেষ হয়েছে। এই নির্বাচনী আবহে সবপক্ষই এখন একে অপরের দিকে তোপ দাগতে ব্যস্ত।  তেমনই এক সভা থেকে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার তোপ দাগলেন লালুপ্রসাদ যাদবের দিকে। এদিন তাঁর মুখে ছিল নারী স্বাধীনতার কথা। লালু জমানায় নারী স্বাধীনতার কী হাল হয়েছিল, এদিন তা নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করলেন নীতীশ কুমার।

এদিন নীতীশ কুমার বলেন, ‘ওরা এখনকার কথা বলছে, তখন, মানে আগের আমলে নারী নিরাপত্তার কী অবস্থা ছিল?‌ মহিলাদের হেলাফেলা করা হত, কেউ তাদের ইস্যুর দিকে ফিরেও তাকাতেন না।’‌ মুখ্যমন্ত্রী আরও  বলেন, ‘‌যখন মুখ্যমন্ত্রী হয়ে তিনি জেলে গিয়েছিলেন, তখন তাঁর আসনে স্ত্রী (‌রাবড়ি দেবী)‌–কে বসিয়ে গিয়েছিলেন। ব্যস, এইটুকুই। মহিলাদের জন্য আর কিছু তিনি করেননি।’‌ কার্যক্ষেত্রে ১৯৯৭ সালে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগে লালুপ্রসাদ যাদবকে জেলে যেতে হয়েছিল। সেই সময় মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারে তিনি তাঁর স্ত্রীকে বসিয়েছিলেন।

         আরও পড়ুন: পেঁয়াজের পর আলু, দাম কমাতে ভুটান থেকে আমদানির ভাবনা কেন্দ্রের

এর পর নীতীশ নিজে তাঁর আমলে কী করেছেন, তার খতিয়ান তুলে ধরেন। তিনি বলেন, মহিলাদের কাজের সুযোগ দিয়েছে তাঁর সরকার। শহর ও গ্রামের প্রশাসনে মহিলাদের জন্য আলাদা করে সংরক্ষিত আসনের সংখ্যা বেড়েছে। বেড়েছে পিছিয়ে পড়া তফসিলি জাতি ও উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত আসনের সংখ্যাও। তিনি বলেছেন, ‘‌আজ যদি বিহারের কোনও উন্নতি হয়ে থাকে, তাহলে সেটা হয়েছে প্রশাসনে মহিলাদের অংশগ্রহণের কারণে। আর মহিলাদের অর্থনৈতিক স্বনির্ভরতার প্রশ্নেও এদিন তিনি একাধিক সরকারি প্রকল্পের কথা তুলে ধরেন, যেখানে মেয়েদের আর্থিক নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়ে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close