fbpx
কলকাতাহেডলাইন

দুই হাসপাতালে অমিল বেড, ৭ দিন SSKM চত্ত্বরে কাটিয়ে মৃত্যু শিশুর

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা:  রাজ্যে করোনা সংক্রমণ ফের বেড়ে যাওয়ার কারণে অন্যান্য রোগীদের ক্ষেত্রে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে শয্যা সংকট। ফলত দুই হাসপাতালে রেফার হয়ে এসএসকেএম হাসপাতাল চত্বরে ৭ দিন পড়ে থেকে মৃত্যু হল এক শিশুর। ফলে ফের প্রশ্নের মুখে রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা।

জানা গিয়েছে, জন্মের পরেই ওই শিশুটির পিঠে টিউমার ধরা পড়ে। সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে নিয়ে কলকাতায় চলে আসেন বর্ধমানের বাসিন্দা ওই দম্পতি। তাঁদের অভিযোগ, কলকাতার এনআরএস এবং এসএসকেএম হাসপাতালের চিকিৎসকেরা বেড নেই বলে তাকে ভর্তি নিতে অস্বীকার করেন। বেড পাওয়ার আশায় টানা গ দিন সন্তানকে নিয়ে এসএসকেএম হাসপাতালের চত্বরেই ছিলেন বাবা-মা। সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ মৃত্যু হয় শিশুটির।
ওই শিশুটির পরিবার সূত্রে  আরও জানা গিয়েছে, জন্মের পর টিউমার ধরা পড়ায় প্রথমে বর্ধমানে গ্রামীণ হাসপাতালে তার চিকিৎসা শুরু হয়। পরে সেখানে সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। সেখানকার চিকিৎসকেরা শিশুটির বাবা সমীর সর্দারকে কলকাতায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।
প্রথমে এনআরএস হাসপাতালে রেফার করা হয়। অভিযোগ, এনআরএস হাসপাতালের চিকিৎসকেরা শিশুটিকে দেখার পর কয়েকটি পরীক্ষা করতে হবে বলে লিখে দিয়েছিলেন। ওই দম্পতি পরীক্ষা করানোর পর শিশুটিকে ভর্তি না নিয়ে এসএসকেএম হাসপাতালে রেফার করে দেওয়া হয়।
সেখানেও চিকিৎসকেরাও বেড নেই বলে তাদের অন্য কোথাও দেখানোর কথা জানিয়ে দেন। কিন্তু বেড পাওয়ার আশায় টানা ৭ দিন হাসপাতাল চত্বরেই ছিলেন ওই দম্পতি। এদিন দুপুরে মৃত্যু হয় শিশুটির। এর পরে হাসপাতালের গাফিলতির অভিযোগ তুলে চিকিৎসকদের শাস্তির দাবি করেছেন পরিবারের লোকজন।

Related Articles

Back to top button
Close