fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মতুয়াদের নাগরিকত্ব আদায়ের ক্ষেত্রে কোনও আপস নয়, সিএএ লাগু হবেই এরাজ্যে: জগন্নাথ সরকার 

শ্যামলকান্তি বিশ্বাস, কৃষ্ণনগর: সিএএ লাগু শুধু সময়ের অপেক্ষা এবং এদেশে বসবাসকারী প্রতিটি মতুয়া সহ উদ্বাস্তু পরিবারই নাগরিকত্ব পাবে। আমি জগন্নাথ সরকার, মতুয়া পরিবারের সন্তান, মতুয়াদের আশীর্বাদে আমি এই এলাকার সাংসদ হয়েছি, মতুয়াদের নৈতিক দাবি দাওয়া সহ নাগরিকত্ব আদায়ের ক্ষেত্রে আমি অতীতে লড়ছি এবং আগামীতে ও লড়ব, শুরুটা এই ভাবেই করলেন সাংসদ জগন্নাথ সরকার। ১৭ নভেম্বর রানাঘাট রথতলা নবারুণ সংঘের মাঠে নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে হরি গুরুচাঁদ মতুয়া মহাসংঘ ও নিখিল ভারত উদ্বাস্তু সমন্বয় সমিতির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত জনসমাবেশে বক্তব্য রাখছিলেন সাংসদ জগন্নাথ সরকার।

জগন্নাথবাবু তার বক্তব্যে বিশেষভাবে উল্লেখ করেন, উদ্বাস্তুদের প্রকৃত বন্ধু কেন্দ্রের বিজেপি সরকার, এরাজ্য তথা দেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির শত বাঁধা বিপত্তি উপেক্ষা করেও শেষ পর্যন্ত যখন বিলটি আইনে পরিণত হয়েছে, তখন কার্যকর ও নিশ্চিতভাবে হবে, এ বিষয়ে কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই। করোনা অতিমারীর প্রকটে পদ্ধতি গত প্রক্রিয়া শুরুতে  কিছুটা দেরি হলেও খুব দ্রুত কার্যকর হবে।

জগন্নাথবাবুর এই বক্তব্যের পর সমবেত জনতার করতালি সহ হর্ষধ্বনি ও মহিলাদের উলুধ্বনিতে বিজয় আবহে মুখরিত হয়ে ওঠে মহা সভাস্থল। তিনি দীপ্তকন্ঠে জানান, মতুয়া ভক্তবৃন্দ সহ উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্বের জন্য কংগ্রেস, সিপিএম এমনকী বহুজন সমাজ পার্টি, সকলেই মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। একমাত্র রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টি, যারা কিনা পূর্ববঙ্গ থেকে বিতাড়িত সংখ্যালঘু উদ্বাস্তুদের কথা ভেবে তাদের আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে শিলমহর দিল অর্থাৎ দাবিকে বিল আকারে উপস্থাপন করে আইনে পরিণত করলেন এবং নিশ্চিতভাবে অতি দ্রুত কার্যকরী হবে বলে দাবি করেন জগন্নাথবাবু। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহজি বিষয়টি নিজে দেখভাল করছেন।

আরও পড়ুন: শুভেন্দুর মুখোমুখি তৃণমূল সাংসদ, বৈঠকে নিশানায় অভিষেক, প্রশান্ত কিশোর

সভায় অন্যান্য বক্তাদের মধ্যে ছিলেন, নিখিল ভারত উদ্বাস্তু সমন্বয় সমিতির রাজ্য সভাপতি অসিত মজুমদার, রাজ্য মহিলা সম্পাদিকা শুক্লা সেন, দিল্লি রাজ্য কমিটির সভাপতি বরুণ হালদার, মতুয়া মহা সংঘের দিলীপ মহুরী সহ অন্যান্য সকলের আলোচনায় এক ই দাবির পাশাপাশি প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশে সম্প্রতি যে ভাবে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর অত্যাচার সহ নিপীড়ন শুরু হয়েছে, তার বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় সরকারকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জিতে সোচ্চার হন সকলে।

Related Articles

Back to top button
Close