fbpx
কলকাতাহেডলাইন

৬ দিন বিদ্যুৎহীন থাকায় রণক্ষেত্র নাদিয়াল, ইঁটের ঘায়ে মাথা ফাটল তৃণমূল বিধায়কের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় আমফান বিপর্যয়ের ৬ দিন পর সেনাবাহিনী থেকে কলকাতা পুরসভা এবং পুলিশের তৎপরতায় অনেকটাই স্বাভাবিক ছন্দে ফেরানো গিয়েছে তিলোত্তমাকে। কিন্তু এতদিনেও বিদ্যুৎ-পানীয় জল না পাওয়ায় উত্তপ্ত হয়ে উঠল নাদিয়াল থানার কাঞ্চনতলা এলাকা। বিক্ষোভ সামলাতে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের ছোঁড়া ইঁটের ঘায়ে আহত হন তৃণমূল বিধায়ক আব্দুল খালেক মোল্লা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে যান ডিসি পোর্ট সৈয়দ ওয়াকার রাজা। নামানো হয় র‍্যাফ। টানা ৩ ঘন্টা অশান্ত থাকার পর রাতের দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

 

বাসিন্দাদের অভিযোগ,  দীর্ঘ ৬ দিন কেটে গেলেও এখনও পর্যন্ত বিদ্যুৎ নেই ওই এলাকায়। পানীয় জলও মিলছে না। কবে আসবে প্রশাসনের তরফেও কিছু বলা হচ্ছে না। কেউ তাদের এলাকার পরিস্থিতি দেখতে পর্যন্ত আসেননি। ফলে ধৈর্যচ্যুতি ঘটেছে কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকা ওই এলাকার বাসিন্দাদের। আর সেই দাবিতে মঙ্গলবার বিকেলে কার্যত রণক্ষেত্র চেহারা নেয় ওই এলাকা।

 

 

এদিকে বাসিন্দাদের বিক্ষোভের কথা শুনে সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছন মেটিয়াব্রুজের তৃণমূল বিধায়ক। সঙ্গে যায় নাদিয়াল থানার পুলিশও। জানা গিয়েছে, প্রথমে বিধায়কের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়ে স্থানীয় বাসিন্দারা। তারপরেই রণক্ষেত্র পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এলোপাথাড়ি ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন বেশ কিছু স্থানীয় যুবক। এর মধ্যে পড়ে গিয়ে ইঁটের ঘায়ে বিধায়কের মাথা ফেটে যায়। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিএমআরআই হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।

 

 

ডিসি পোর্ট(বন্দর) সৈয়দ ওয়াকার রাজা বলেন,  ‘শান্তিপূর্ণ আলোচনার মধ্যে অশান্তি যারা পাকিয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা করছি। দোষীদের দ্রুত  গ্রেফতার করা হবে। আপাতত এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে।’ একইসঙ্গে তিনি বলেন,  ‘বাসিন্দাদের অভিযোগের কথা প্রশাসনের তরফে সংশ্লিষ্ট বিভাগে জানিয়ে মিটিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে।’

Related Articles

Back to top button
Close