fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চাকরি লাগবে না, ছেলের খুনের বিচার চাই, রাজ্য সরকারের চাকরি ফেরালেন নিহত ছাত্রনেতা আনিসের বাবা

আনিসের ফোন পুলিশকে দিতে অস্বীকার পরিবারের

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্কঃ হাওড়ার আমতায় ছাত্র নেতা আনিস খানের মৃত্যু ঘটনায় এখনও অধরা খুনিরা। ঘটনার তিন’দিন পার হয়ে গেলেও এখনও দোষীরা গ্রেফতার না হওয়ায় ক্ষোভে ফুঁসছে পরিবার সহ গোটা গ্রাম। ইতিমধ্যে রাজ্য সরকারের তরফে আনিসের চাকরি দেওয়া কথা জানানো হলেও সেই প্রস্তাব নাকচ করেছেন পরিবার।

আনিসের বাবা জানিয়ে দিয়েছেন, ‘চাকরি আমার মাথায় থাক। আগে বিচার হোক। পরে আপনার চাকরি নেব’। এদিকে এই অবস্থার মধ্যে আনিসের যে মোবাইল খুঁজে পাওয়া যাচ্ছি না, সেই মোবাইল ছাদ থেকে উদ্ধার হয়। এদিকে আনিসের পরিবারে তরফ থেকে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, পুলিশের তদন্তে বিশ্বাস নেই। উদ্ধার হওয়া মোবাইল ফোনও তারা পুলিশকে দেবে না বলে জানিয়েছেন। আনিসের পরিবারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, পুলিশই তাদের বাড়ির ছেলেকে খুন করেছে, তাই মোবাইল পুলিশের হাতে দেবে না তারা। কোর্ট বা সিবিআই চাইলে সেখানে আনিসের ফোন দেবে তারা।
এদিকে ইতিমধ্যেই আনিসের বাড়িতে বসেছে পুলিশি পাহারা। বাড়ির সামনে বসেছে সিসি ক্যামেরা। আনিসের বাবা জানিয়েছেন, কোনও পুলিশি প্রহরার দরকার তাদের নেই। শুধু বিচার চাই এই ঘটনার।

ছাত্র নেতা খুনের ঘটনায় ক্রমশই ধৈর্য্যের বাঁধ ভাঙছে আমতার সারদা দক্ষিণ খাঁ পাড়ার। দোষীদের ধরে উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে পুলিশ থেকে নেতা, মন্ত্রীদের সামনে ক্ষোভ উগরে দেন তারা।

আনিসের বাড়িতে গতকালই যান, ডিএসপি পদমর্যাদার পুলিশ আধিকারিক। তার সামনেই এদিন আনিসের বাবা সিবিআই তদন্তের দাবি তোলেন। আনিসের পরিবারে সঙ্গে দেখা করতে আসেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী পুলক রায়। পুলক রায় জানিয়েছেন, পরিবারের পাশে আছি। এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হবে। আমরা এই ঘটনা নিয়ে কোনও রাজনীতি চাই না।পুলক রায়কে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় মানুষ। সেই বিক্ষোভের কথা উড়িয়ে দেন মন্ত্রী।

ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিট গঠন করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী আনিস খুনে ১৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট তলব করেছেন। মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে এই সিট গঠন করা হবে। মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পরই সাংবাদিক বৈঠকে বসেন রাজ্য পুলিশের ডিজি মনোজ মালব্য। বললেন, “মুখ্যমন্ত্রী ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন এবং তাঁর নির্দেশ মতো আমরা একটি বিশেষ তদন্তকারী দল গঠনও করে নিয়েছি।”
এদিকে আবার আনিসের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। হাওড়া গ্রামীণের পুলিশ সুপার সৌম্য রায়ের দাবি, আমতা ও বাগনান থানায় একাধিক মামলা বকেয়া রয়েছে আনিসের বিরুদ্ধে। তাঁর নামে চারটি মামলা রয়েছে বলে দাবি পুলিশের। তার মধ্যে আমতা থানায় রয়েছে তিনটি মামলা এবং বাগনান থানায় রয়েছে একটি মামলা।

Related Articles

Back to top button
Close