fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সরকারী বাস চললেও পথে নামবে না কোনও বেসরকারী বাস

মিল্টন পাল, মালদা: করোনা পরিস্থিতিতে আন্তঃজেলা বাস চালানো নিয়ে সমস্যায় পরেছে বাস মালিক সংগঠন থেকে চালক, খালাসীরা। আর এই নিয়ে জেলা পরিবহন দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করা হয় মঙ্গলবার। এই বৈঠক ঠিক হয় যে, ২০ জন যাত্রী নিয়ে বাস চালালে ক্ষতি হবে বাস মালিকদের। এই অবস্থায় ২৭ মে থেকে বেসরকারী বাস পথে নামছে না।

পরিবহন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, মালদা জেলার গৌড় কন্যা বাসস্ট্যান্ডে ১৮০টি বাস রয়েছে।বাস গুলি জেলার হবিবপুর বামন গোলা পাকুয়া গাজোল চাঁচল হরিশ্চন্দ্রপুর মানিকচক কালিয়াচক সুজাপুর বৈষ্ণবনগর সহ একাধিক রুটে চলাচল করে। করোনা সংক্রমন আটকাতে সরকার নির্দেশ জারি করেছে। সেই নির্দেশে বলা হয়েছে ২০জন যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে হবে। করতে হবে স্যানিটাইজ। তার ওপর চালক খালাসীদের খরচ। সরকারী নির্দেশে বাস চালালে ক্ষতির মুখে পরতে হবে। পাশাপাশি চালক খালাসীদের কোনও নিরাপত্তা নেই। এই অবস্থায় কোনও মতেই বাস চালানো সম্ভব নয়।

এক বেসরকারী বাসের চালক জানান, করোনা পরিস্থিতিতে আমাদের কোনও নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে না। কারোর কোনও রকম কিছু হলে মরতে হবে। আমরা এই পরিস্থিতিতে কোন মতেই বাস চালাবো না।

মালদা প্রোগ্রেসিভ বাস অনার্স এসোসিয়েশনের সহ সভাপতি অনন্ত চক্রবর্তী বলেন, ২৭মে বাস চালানোর যে নির্দেশ দেওয়া তাতে ক্ষতি করে রাস্তায় বাস চালানো সম্ভব নয়। এই নিয়ে জেলা পরিবহন দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। তাদের নির্দেশে বাস চালালে একদিন প্রচুর ক্ষতি হবে। বুধবার শ্রমিক ও মালিক পক্ষের সাথে বৈঠকের কথা বলা হয়েছে। তবে ক্ষতি করে রাস্তায় বাস কোনও মতে চলবে না।

উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের চেয়ারম্যান অপূর্ব সরকার বলেন, আন্তঃজেলা বাস চলাচলের ক্ষেত্রে ইতিমধ্যে রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা হয়েছে। কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চলাচল করা হবে। সেই নির্দেশ মেনে সরকারি বাস চলাচল করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close