fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা পরিপ্রেক্ষিতে এবার রথ যাত্রা ও বিপত্তারিনী পুজো বন্ধের সিদ্ধান্ত সাঁইথিয়ায়

সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাঁইথিয়া : রাজ্যের অন্যান্য শহরে যেমন করোনা অতিমারীর পরিপ্রেক্ষিতে রথযাত্রা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, সাঁইথিয়াও তার ব্যতিক্রম হল না।

 

 

 

গত রবিবার রথযাত্রা পরিচালন সমিতির বৈঠকে শহরবাসীর নিরাপত্তার স্বার্থে এবারের রথযাত্রা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে উপস্হিত ছিলেন পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান ও বর্তমান প্রশাসক বিপ্লব দত্ত, সাঁইথিয়া থানার ওসি নীলোৎপল মিশ্র, পরিচালন সমিতির পক্ষে পিনাকীলাল দত্ত ও অন্যান্যরা। শুধু রথযাত্রাই নয়, এর সঙ্গে বিপত্তারিনী পুজোও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

 

 

সাঁইথিয়া শহরে নন্দিকেশ্বরী মন্দির সংলগ্ন জায়গায় রথমন্দির প্রতিষ্ঠা করা হয়। কাঠের তৈরী রথটি শহরে এখন বিপুল জনপ্রিয়। আগে সাঁইথিয়া শহরে রথ বলতে দাস ও সুত্রধর পরিবারের দুটো কাঠের রথ ছিল। শহরের মানুষ ওই দুটো রথ নিয়েই আনন্দ উৎসবে মেতে উঠতো রথের দিন। বছর তিরিশ আগে নন্দিকেশ্বরী তলায় এই বড় আকারের রথটি নির্মান করা হয়। তখন থেকে এই রথটিই শহরের মানুষের আকর্ষনের কেন্দ্রবিন্দু হয় উঠেছে। এলাকার বিশ পঁচিশটা গ্রামের হাজার হাজার মানুষ ভীড় করে শহরের রাস্তায়। কাঠের তৈরী রথ নিয়ে মানুষ সারা শহর প্রদক্ষিন করে। নন্দিকেশ্বরী তলায় একটা বড়সড় মেলাও বসে।

 

 

 

পুরসভার প্রশাসক বিপ্লববাবু বলেন, এবার রথের মেলা করা যাচ্ছে না এবং এটা আমার কাছেও মন খারাপ করা একটা খবর। কিন্তু শহর ও সংলগ্ন এলাকার মানুষের স্বাস্হ্যনিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই এ সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। রথের মেলার পরেই হবে বিপত্তারিনী পুজো। সে সময়ও নন্দিকেশ্বরী মন্দিরে প্রায় কুড়ি হাজার লোকসমাগম হয়। সেটাও বন্ধ রাখা হচ্ছে। সাঁইথিয়া শহরের উত্তরে ময়ুরাক্ষী নদী পেরিয়ে কুন্ডলা গ্রামের শতাব্দী প্রাচীন রথবাড়ির পিতলের রথের মেলাও এবার হবে না বলে শোনা গেল যদিও রথবাড়িসুত্রে খবর পাওয়া গেল এখনও এবিষয়ে কোন চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

Related Articles

Back to top button
Close