fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কয়লাখনি নিয়ে আলোচনায় ব্রাত্য , ফুঁসছে আদিবাসী সমাজ

প্রদীপ্ত দত্ত, সিউড়ি : ডেউচা-পাঁচামি প্রস্তাবিত কয়লাখনি এলাকায় বসবাসকারী অধিকাংশ মানুষই আদিবাসী সম্প্রদায়ের। গতকাল মুখ্যমন্ত্রীর দু’বছর আগে উদ্ধোধন করা দেউচা -পাঁচামি কয়লা প্রকল্প নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা । সেখানে তিনি জানান একশো শতাংশ পুনর্বাসন দেওয়া হবে স্থানীয় বাসিন্দাদের।

কোনও বেসরকারি সংস্থা নয় , সরকার এই প্রকল্পের কাজ মানুষের স্বার্থে করবেন। সেইসঙ্গে তিনি জানান এলাকার মানুষদের বক্তব্য তিনি শুনেছেন । কিন্তু পাঁচামীর দেওয়ানগঞ্জ , হরিরণশিঙার আদিবাসীদের অভিযোগ তাদের আলোচনায় ঢুকতেই দেওয়া হয়নি ।‌আদিবাসী নেতা সুকল মারান্ডি জানান , ” কয়লাখনি হলে এখান আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ ভিটেমাটি ছাড়া হবে । তাদেরই ডাকা হলো না। চোখে ধুলো দিতে বৈঠকে ভাড়া করা লোক নিয়ে আসা হয়েছিল। ” তিনি আরও জানান প্রশাসনের এই আচরণে ফুঁসছে এলাকার আদিবাসী সমাজ।
আদিবাসী অধিকার মঞ্চের আর এক নেতা সুশীল ঢ্যাঙর জানান , ” আমরা কয়লাখনির বিরুদ্ধে নই , কিন্তু ক্ষতিগ্ৰস্ত আদিবাসী মানুষদের ন্যায্য ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসন দিতে হবে আগে । কিন্তু এতবড় বৈঠকের কথা আমাদের জানানোই হয়নি ।”

প্রশাসনের তরফ থেকে বৈঠক সুষ্ঠ ভাবে হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।পুজোর পরই প্রাথমিক কাজ শুরু হবার কথা । কিন্তু পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ নিয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্তে আসা যায়নি বলেই প্রশাসন সূত্রের খবর । সেই পরিস্থিতিতে মহম্মদ বাজার ব্লকের দেউচা , হরিনশিঙা , দেওয়ানগঞ্জ, পাঁচামী ,হাটগাছা চান্দা মৌজার মানুষদের আলোচনায় ব্রাত্য রেখে এই প্রকল্পের কাজ কিভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

Related Articles

Back to top button
Close