fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

আর লকডাউন নয়, এবার আনলক-২ এর পথে মোদি!

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: শুরু হয়েছে ‘আনলক-ওয়ান’ পর্বও। কিন্তু ফের আঁটসাঁটও লকডাউন আশঙ্কা নানা মহলে। আনলক না ফের বজ্রআঁটুনি লকডাউন এ নিয়ে গুজবও ছড়াচ্ছে বিস্তর। সেইসব গুজব উড়িয়ে দিয়ে আনলক-কেই কীভাবে নতুন সমাধান হিসেবে ব্যবহার করা যায় সেই দিশা খুঁজতে বুধবার ১৪টি রাজ্যর মুখ্যমন্ত্রীদের বার্তা দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

বুধবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে চলাকালিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন লকডাউন ফেরানোর কোনও সম্ভাবনা নেই। পাশাপাশি কীভাবে ‘আনলক ওয়ান’ এবং এর পরবর্তী ফেজে করোনা সংক্রমণ রোখা যেতে পারে তাঁর স্ট্র্যাটেজিও তৈরি করতে বলেন। মোদি জানান পরিবর্তীতে আনলক পর্যায় বাড়ানো হলে কোভিড সংক্রমণের আশংকা থাকছে। তাই পিএম কেয়ার তহবিলের টাকা ব্যবহার করে রাজ্য যাতে নিজেরাই পিপিই কিট, ভেন্টিলেটর তৈরি করে সেদিকেও জোর দেন প্রধানমন্ত্রী। তবে মোদী বলেন, ‘বিশ্বের তুলনায় আমরা অনেকটাই ভালো জায়গায় রয়েছি। আমরা যেভাবে নিজেদের সেরাটা দিয়ে এই সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করে গিয়েছি তা উল্লেখযোগ্য। আগামীতে আমাদের আরও সতর্ক থাকতে হবে। নিজেদের ক্ষমতা আরও বৃদ্ধি করতে হবে।’

আরও পড়ুন: কয়লায় বাণিজ্যিক সংস্কার, লাভের মুখ দেখবে রাজ্য সরকার গুলি: মোদি

এখনও করোনা দাপট অব্যাহত দেশের যে ১৪টি রাজ্যে, তাদের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গেই বৈঠক করেন মোদি। উপস্থিত ছিল মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি, গুজরাট, রাজস্থান, পশ্চিমবঙ্গ, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, কর্ণাটক, বিহার, অন্ধ্রপ্রদেশ, হরিয়ানা, তেলেঙ্গানা এবং ওড়িশা। করোনা সংক্রমণ বাড়ার প্রসঙ্গে মোদি বলেন, টেস্টিং ট্র‍্যাকিং, ট্রেসিং এবং আইসোলেটিং জরুরী। আশ্বস্ত হওয়ার খবর হল, দেশে সুস্থতার হার বাড়ছে। খুব কমসংখ্যক রোগীকে আইসিইউ, ভেন্টিলেটর দিতে হচ্ছে। রাজ্যগুলিকে করোনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ানোর জন্য বলেন মোদি।

মুখ্যমন্ত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, রাজ্যগুলিকে পর্যাপ্ত পরিকাঠামো তৈরি করতে হবে। আমজনতাকে তথ্য জানানোর ব্যবস্থা করতে হবে। এদিনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। অর্থনীতির গতিকে স্বাভাবিক করার বিষয়ে আলোচনা হয়। তখন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার বলেন, ৩০লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক রাজ্যে ফিরেছেন। এখন তারা আর কেউ কাজে যেতে চাইছেন না। তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী বলেন, পরিযায়ী শ্রমিকরা কাজে ফিরতে চাইলে তাদের ফেরানোর ব্যবস্থা করা হোক। মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এই ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের বৈঠকে অর্থনীতির বিষয়ে সমস্যাগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়।

 

Related Articles

Back to top button
Close