fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

২০০১ থেকে ২০২০… NOT OUT প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ইনিংস

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রাজনৈতিক জীবনের ২০ বছরে পদার্পণ করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ২০০১ সালের ৭ অক্টোবর প্রথম ক্ষমতা পেয়েছিলেন তিনি। এরপর থেকে আর তাঁকে থামানো যায়নি। একের পর সাফল্যের অধিকারী হয়েছেন তিনি। ২০০১ সাল থেকে ২০২০ পর্যন্ত অজেয় মোদি। এই ২০ বছরে তাঁর ঝুলিতে একটাও পরাজয় নেই। বুধবার অর্থাৎ ৭ অক্টোবর তাঁর এই রাজনৈতিক জীবনের  ২০ বছরে পদার্পণ।  দীর্ঘ দুদশক ধরে একের পর এক সংস্কারমূলক কাজ করেছেন তিনি। রাজ্য রাজনীতি থেকে জাতীয় রাজনীতি সবক্ষেত্রেই বাজিমাত করেছেন নমো।

প্রথম ক্ষমতা পান ২০০১ সালের ৭ অক্টোবর। এরপর ২০০২, ২০০৭ ও ২০১২ সালে পরপর গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হয়ে মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেছেন তিনি। এরপর ২০১৪ সালে রাজ্য রাজনীতি থেকে জাতীয় রাজনীতিতে প্রবেশ। ২০১৪ সালে কংগ্রেস জোটকে হারিয়ে ক্ষমতা দখল করে গেরুয়া শিবির। ২০১৯ সালে পুনঃনির্বাচিত হয়ে প্রধানমন্ত্রী আসনে বসেন মোদি। গুজরাটে মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন বিতর্ক পিছু ছাড়েনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর।

[আরও পড়ুন- কনটেন্টমেন্টে কোনও পুজো নয়, নয়া গাইডলাইন প্রকাশ করল কেন্দ্র]

মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন ভূজের ভয়ানক ভূমিকম্প হয়েছিল গুজরাটে। সেইসময় পরস্থিতি খুব ভালোভাবে সামলিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গুজরাটে একের পর এক সংস্কারমূলক কাজ করেছেন তিনি। এরমধ্যে রয়েছে বিদ্যুৎ সংস্কার। ক্ষমতায় এসেই গুজরাটের প্রান্তিক এলাকাগুলিতে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন তিনি। তাঁর সময়ে গুজরাটে কৃষি ও শিক্ষার ক্ষেত্রে উন্নয়ন হয়। এই সময়ে গুজরাটে শুরু হয় কন্যা কল্যাণী প্রকল্প। যার মূল লক্ষ্য মেয়েদের আরও বেশি করে শিক্ষার আঙিনায় নিয়ে আসা। গ্রামে গ্রামে ঘুরে প্রচার চালাতে থাকেন তিনি। কিন্তু এতকিছুর পরেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি প্রধানমন্ত্রীর। তাঁর সময় হয়েছে গোধরা হিংসা। ভূজ ভূমিকম্পে গুজরাটে ত্রাণবিলি নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। কিন্তু সব বিতর্ককে দূরে সরিয়ে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন একের পর সাহসী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মোদি। নোটবন্দী, তিন তালাক বিলোপ, ৩৭০ ধারা, সারজিকাল স্ট্রাইক সহ রামমন্দির, বাবরি মসজিদ হামলার রায় তাঁর সময় হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close