fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দিনহাটায় বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, তবে অনেকেরই মুখে নেই মাস্ক

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা: দিনহাটা মহকুমাজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যখন বেড়ে চলছে তখন অনেকেরই মুখের মাস্ক নেমে এসেছে গলায়। মাস্কবিহীন যারা চলাচল করছে তারা নানাভাবে সমাজকে ক্ষতি করার চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ। এদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি উঠেছে।

পুলিশ ও  প্রশাসনের পাশাপাশি বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে নানাভাবে সর্তকতা ও সচেতনতা প্রচার করা সত্ত্বেও বাসিন্দাদের অনেকেরই ডোন্ট কেয়ার মনোভাব এই রোগ আরো বেশি ছড়িয়ে পড়ছে বলে উল্লেখ করেন অনেকে। দিনহাটা মহকুমায় হু হু করে বেড়ে চলছে করণা আক্রান্তের সংখ্যা। দুই দিনে ৪৩ জন করোনা সংক্রমিত হয়। দিনহাটা পুরসভা এলাকা সহ মহকুমায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলায় অনেকেরই মাস্ক  নিয়ে ডোন্ট কেয়ার মনোভাব ক্ষতি করছে উল্টো সমাজকে । যারা মাস্ক না পড়েই বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাঘুরি করছে বিরুদ্ধে পুলিশকে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণের কথা বলেন অনেকেই।

                     আরও পড়ুন: কেরলে ভূমিধসে মৃত বেড়ে ৪৮, উদ্ধার আরও পাঁচটি দেহ

সোমবার দিনহাটার বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেল কেউ মাস্ক মাদুলির মত গলায় ঝুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আবার কেউ পুলিশ কে দেখে  মাঝে মধ্যে  রুমাল দিয়ে মুখ ঢাকছেন। সাধারণ বাসিন্দাদের পাশাপাশি দিনহাটা শহরের বেশ কিছু দোকানে একই চিত্র দেখা গেল। ব্যবসায়ীদেরকে নানাভাবে সচেতন করা হলেও তারাও নিজেরাই অনেকে যেমন মাস্ক না পড়েই দোকানে রয়েছেন তেমনি মাস্ক হীনদের হাতেও তারা খাদ্য সামগ্রী থেকে শুরু করে বিভিন্ন রকম জিনিসপত্র তুলে দিচ্ছেন।

আই এম এ দিনহাটা মহকুমা শাখার সম্পাদক বিদ্যুৎ কমল সাহা বলেন এই রোগ মোকাবিলায় সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসক বিপ্লব বন্দ্যোপাধ্যায়,উজ্জ্বল আচার্য, কল্লোল ব্যানার্জি প্রমুখ বলেন, এটা একটা মহামারী। তাই এই রোগ থেকে রক্ষা পেতে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। ব্যবসায়ী সংগঠনগুলির পক্ষ থেকে যখন ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়কে এই রোগ মোকাবিলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক বলে ঘোষণা করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও অনেক ব্যবসায়ী মাস্ক ছাড়াই জিনিসপত্র বিক্রি করছেন। সংগঠনের পক্ষ থেকে এর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে নেতৃত্বরা জানান।

দিনহাটা শহরের ব্যস্ততম পাঁচ মাথার মোড়ে বেশ কয়েকজন ফলবিক্রেতা কোন রকম মাস্ক ছাড়াই জিনিসপত্র বিক্রি করার সময় জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন মাস্ক পড়লে গ্রাহকদের সাথে কথা বলতে অসুবিধা হয়। এক গাড়ির কর্মীকে মাস্ক না পড়ার বিষয়টি জানতে তিনি বলেন মাস্ক পড়েছি। এরপরেই তিনি গলার থেকে দ্রুত তুলে মুখ ও নাক  ঢাকেন।

উল্লেখ্য করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দিনহাটার বিভিন্ন ক্লাব ও সংগঠনের পক্ষ থেকে বিশু ধর, গৌরীশংকর মহেশ্বরী, নৃপেন দেবনাথ প্রমুখরা রাস্তায় নেমে  মাস্ক বিহীন  পথচারীদের  নানাভাবে সচেতন করেন।

 

মহকুমা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক রানা গোস্বামী,ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক উৎপলেন্দু রায় প্রমূখ  বলেন, যারা স্বাস্থ্যবিধি না মেনে দোকান খুলে ব্যবসা করার চেষ্টা করবেন তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ প্রশাসন ব্যবস্থা নিলে তারা প্রশাসনকে সহযোগিতা করবেন।

দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত বলেন মাস্ক ছাড়া যারা ঘোরাঘুরি করে তাদের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে একাধিকবার পুলিশ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে। এর বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান চলবে।মহকুমা শাসক শেখ আনসার আহমেদ বলেন এই রোগ মোকাবিলায় মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা বাধ্যতামূলক।

Related Articles

Back to top button
Close