fbpx
কলকাতাহেডলাইন

করোনায় আক্রান্ত হয়ে এসএসকেএমের নার্সের মৃত্যু বেলেঘাটা আইডিতে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল এসএসকেএম হাসপাতালের এক নার্সের। মৃতার নাম প্রিয়াঙ্কা মণ্ডল। তাঁর বয়স হয়েছিল ৩৪ বছর। গত দশ দিন ধরে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন ছিলেন এই তরুণী নার্স। তাঁকে রাখা হয়েছিল আইসিইউতে। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দিতে হয়। মঙ্গলবার ভোর বেলা মৃত্যু হয় তাঁর।সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে বজবজের বাসিন্দা নার্সের পরিবারকে শেষ দেখা করার অনুমতি দেওয়া হতে পারে। নিয়ম মেনে শেষকৃত্য হতে পারে পুরসভার তত্বাবধানে।

এসএসকেএমের সুপার রঘুনাথ মিশ্র জানান, ৪১ বছরের নার্সের শ্বাসকষ্টের সমস্যা ছিল। গত ১৬ তারিখ হাসপাতালেই তাঁর শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। তখনই তাঁকে এসএসকেএমের কার্ডিওলজি বিভাগের কেবিনে ভরতি করা হয়। এরপর তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয় কোভিড পরীক্ষার জন্য। ১৮ তারিখ রিপোর্ট আসে পজিটিভ। তারপরই তাঁকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় আইসিইউ-তে (ICU) স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই এতদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছিলেন বজবজের বাসিন্দা এই সেবিকা।

প্রিয়াঙ্কা মণ্ডলের ১১ বছরের এক পুত্রসন্তান আছে। তাঁর পরিবারের সকলের নমুনা সংগ্রহ করা হবে করোনা পরীক্ষার জন্য। আপাতত তাঁদের সকলকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে বলে খবর। এসএসকেএমের নার্স অসুস্থ হওয়ার আগে পর্যন্ত হাসপাতালে কাজ করেছিলেন, তাই হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগটি পুরো স্যানিটাইজ করা হয়েছে। হাসপাতালের যেসব কর্মী, রোগীরা তাঁর সংস্পর্শে এসেছিলেন, তাঁদের চিহ্নিত করে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করার বন্দোবস্ত হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে এসএসকেএম সূত্রে।

আরও পড়ুন: রাজ্যে আবারও কি ফিরছে কড়া লকডাউন! আজই বৈঠকে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিত্‍সক, নার্স বা স্বাস্থ্যকর্মীদের মৃত্যুর ঘটনা এই প্রথম নয়। এর আগে স্বাস্থ্য ভবনের এক আধিকারিকেরও মৃত্যু হয়েছে। এবার করোনার বলি এসএসকেএমের নার্সের। তাঁর মৃত্যুর ঘটনায় গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন এসএসকেএম হাসপাতালের সুপার রঘুনাথ মিশ্র। সরাসরি চিকিত্‍সা পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের এভাবে মৃত্যুতে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতিতে চিন্তার ভাঁজ চওড়া করছে স্বাস্থ্যকর্তাদের কপালে।

প্রসঙ্গত, করোনা যোদ্ধা হিসেবে চিকিত্‍সক-নার্স মেডিকেল স্টাফ ও পুলিশকর্মীরা প্রথম সারিতে রয়েছেন। কিন্তু গত কয়েকদিনে ধারাবাহিকভাবে করোনায় মৃত্যু হয়েছে পুলিশকর্মীদের। এদিন মৃত্যু হল এক যুবতী নার্সের। তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, যারা প্রথম সারিতে দাঁড়িয়ে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করছে তাদের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে।

Related Articles

Back to top button
Close