fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সুন্দরবনের গৌরব বাসন্তী ব্লকের দিনমজুরের ছেলে ইজাজকে শুভেচ্ছা বাসন্তী থানার ওসির

সুভাষ দাস,বাসন্তী: সদ্য প্রকাশিত হয়েছে মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল। আর তাতেই ৬৭৮ নম্বর পেয়ে রাজ্যে ১৫ তম স্থান দখল করে বাজিমাৎ করে দিয়েছে সুন্দরবনের বাসন্তী ব্লকের চাষি পরিবারের ছেলে ইজাজ আহমেদ সর্দার। এমন খবর জানতে পেরেই বুধবার বিকালে সুন্দরবনের ‘রত্ন’ বাসন্তী ব্লকের দিনমজুরের ছেলে ইজাজকে শুভেচ্ছা জানালেন খোদ বাসন্তী থানার ওসি বিশ্বজিৎ ঘোষ ও সুন্দরবনের বিশিষ্ট সমাজসেবী তথা কবি ফারুক আহমেদ সর্দার।

দিন আনা- দিন খাওয়া পরিবারে কোনও রকমে চাষের কাজ করে সংসার চলে। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার বাসন্তী থানার কাঁঠালবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের খেড়িয়া গ্রামের কৃষক সালাউদ্দিন সর্দারের।দুই ছেলে আর স্ত্রীকে নিয়ে সংসার।সালাউদ্দিনসাহেবের স্ত্রী শেরিফা সর্দার সংসারের যাবতীয় দায়িত্ব সেরে দুই ছেলেকে পড়াশোনা করিয়ে শিক্ষিত করার চেষ্টা করতেই থাকেন।দুই ছেলের পড়াশোনা করায় খরচ নিয়ে হিমশিম খেতে হয় সর্দার পরিবারের।

অবশেষে সালাউদ্দিনসাহেবের তাঁর স্ত্রী শেরিফার সঙ্গে আলোচনা করে একটু বেশি উপার্জনের জন্য মাঝে মধ্যে কলকাতায় রাজমিস্ত্রীর জোগাড়ে কাজ করতে যেতেন। পাশাপাশি স্ত্রী শেরিফা অঙ্গনওয়াড়ির কাজ পেয়ে যাওয়ায় একটু ভরসা পেয়ে যায় সর্দার পরিবার। বড় ছেলে উচ্চমাধ্যমিকে পড়াশোনা করায় তার পিছনে প্রায় সমস্ত খরচ চলে যাওয়ায় ছোট ছেলে ইজাজ আহমেদ সর্দারের মাধ্যমিক নিয়ে অনিশ্চয়তা শুরু হয়ে যায়। কি ভাবে ছেলেদের পড়াশোনা করাবেন সেই নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় পড়ে যায় সর্দার পরিবার। পাশাপাশি এলাকায় রাজনৈতিক অস্থিরতার জন্য অন্যত্র থেকে পড়াশোনা করতে হয় ইজাজকে।

আরও পড়ুন:কে বসছেন প্রেসিডেন্ট পদে! ১০ আগস্টের মধ্যে কংগ্রেসকে সভাপতি বেছে নেওয়ার নির্দেশ নির্বাচন কমিশনের

বাসন্তী ব্লকের কুলতলির নারায়ণতলা রামকৃষ্ণ বিদ্যামন্দির থেকে সাত বিষয়ে লেটার সহ সর্বোচ্চ ৬৭৮ নম্বর পেয়ে স্কুলে প্রথম এমনকী ক্যানিং মহকুমা এলাকার সর্ব্বোচ্চ নম্বর এবং রাজ্যে ১৫ তম স্থান পেয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছে দিনমজুর পরিবারের ছেলে ইজাজ আহমেদ সর্দার। প্রতিটি বিষয়ে ইজাজ আহমেদ সর্দার পেয়েছে বাংলায় ৯৫, ইংরেজি ৯৫, গণিত ১০০, ভৌতবিজ্ঞান ৯৮, জীবনবিজ্ঞান ৯৬, ইতিহাস ৯৬, ভূগোল ৯৮।

নিজের বিদ্যালয়ের ছাত্র ইজাজের এমন অভাবনীয় সাফল্যে খুশি হয়ে বাসন্তী ব্লকের কুলতলি নারায়ণতলা রামকৃষ্ণ বিদ্যামন্দিরের প্রধান শিক্ষক দীপক কুমার কর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন “ইজাজ পঞ্চম শ্রেণী থেকে পড়াশোনায় খুব ভালো ছিল। প্রতি ক্লাসে প্রথম হওয়াই ছিল তার চ্যালেঞ্জ। মাধ্যমিক এত ভালো ফল করবে আশা ছিল না। ক্যানিং মহকুমা এলাকায় সর্বোচ্চ নম্বর পাবে তেমনটাও আশা ভরসা ছিল না এছাড়াও ইজাজ রাজ্যে ১৫ তম স্থান পাওয়ায় আমরা খুশি।
ইজাজের সাফল্যে আমরা বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক শিক্ষিকা আনন্দিত এবং গর্বিত”।

ইজাজ জানিয়েছে “আগামী দিনে বিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করে বড় হয়ে সে আইএএস কিংবা আইপিএস হয়ে গ্রামের দরিদ্র দুঃস্থ মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চায়। ইজাজ আরও জানায় যে, সব সময় বাসন্তী ব্লক রাজনৈতিক দাঙ্গায় জর্জরিত। এমনকী তার টেস্ট পরীক্ষার সময় এলাকায় রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তেজিত হয়ে উঠলে অন্যত্র গিয়ে আতঙ্কের মধ্যে পড়াশোনা করতে হয়েছে। এমনটা না হলে মাধ্যমিকের মেধা তালিকাতে নাম তুলতে পারতাম। আগামী দিনে আইপিএস কিংবা আইএএস হয়ে সাধাণ মানুষের কাজে নিয়োজিত করে সুস্থ পরিবেশ গড়ে তুলতে চাই।”

আরও পড়ুন:হিন্দি মুভি ‘দেড় রাত’ দিয়ে বলিউডে ডেবিউ অভিনেতা সুরজিৎ চৌধুরীর

অসহায় দরিদ্র দিনমজুর সালাউদ্দিন ও তাঁর স্ত্রী শেরিফা সর্দার। কারণ ছোট ছেলেকে বিজ্ঞান শাখায় ভর্তি করতে গেলে অনেক টাকার প্রয়োজন! কোথায় পাবেন সেই টাকা। দুঃশ্চিন্তায় রাতে ঘুম উবে গিয়ে ছেলের মাধ্যমিকে ভালো ফল করায় আনন্দের কথাটা ভুলেই গিয়েছে ইজাজ।

অন্যদিকে সুন্দরবনের গর্ব ইজাজ আহমেদ সর্দারের এমন সাফল্যের কথা জানতে পারেন বাসন্তী থানার ওসি বিশ্বজিৎ ঘোষ। তিনি তৎক্ষণাৎ ইজাজ আহমেদ সর্দারের খেড়িয়া গ্রামের বাড়িতে গিয়ে শুভেচ্ছা জানান। শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সুন্দরবনের সমাজসেবী তথা কবি ফারুক আহমেদ সর্দারও।

পাশাপাশি বিশ্বজিৎবাবু আনন্দ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে ইজাজ আহমেদকে বাসন্তীর ‘রত্ন’ বলে জড়িয়ে ধরে প্রশংসা করেন। এবং আগামী দিনে শিক্ষাক্ষেত্রে আরো বেশি সাফল্য কামনা করেন”।

Related Articles

Back to top button
Close