fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দাম আকাশছোঁয়া, সীমান্তে পচছে প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ

শ্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: দাম আকাশছোঁয়া,  সীমান্তে পচছে প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ। বসিরহাট ভারত-বাংলাদেশ ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তের ঘটনা। উল্লেখ্য, ১৪ সেপ্টেম্বর কেন্দ্র সরকার নির্দেশিকা জারি করে পেঁয়াজ রফতানি করা যাবে না। যার ফলে ইতিমধ্যেই প্রায় ৩০০ পেঁয়াজের ভর্তি ট্রাক ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তে দাঁড়িয়ে আছে।

 

গত সাতদিন ধরে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি পেঁয়াজের ট্রাক। যার ফলে একদিকে রফতানি বন্ধ। অন্যদিকে পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাকগুলি নিজের রাজ্যে ফিরে যেতে পারছে না। দুইয়ের যাঁতাকলে মাঝে পড়ে পচন রোগ ধরতে শুরু হয়েছে পেঁয়াজের। ব্যবসায়ী থেকে চালক খালাসী শ্রমিকরা কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে সমস্যা পড়েছে। ইতিমধ্যে ৮০০০ টন পিয়াজ সীমান্তে ট্রাকে মধ্যে দাঁড়িয়ে আছে। ব্যবসায়ীরা থেকে চালকরা বলছেন, এই দাবদাহে গাড়ির ভিতরে থাকা পেঁয়াজের বস্তা প্রায় ৪০ শতাংশ পচন ধরতে শুরু হয়েছে। যত সময় যাচ্ছে তত ক্ষতির পরিমাণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সীমান্তে প্রায় ৩০ কোটি টাকার পেঁয়াজ ট্রাক বন্দি হয়ে রয়েছে সেইগুলো রফতানি না হওয়ার ফলে প্রতিদিন ২ থেকে ৩ কোটি টাকার ক্ষতি হচ্ছে।

                          আরও পড়ুন: উর্মিলাকে ‘সফট পর্ণস্টার’ বলে আক্রমণ কঙ্গনার

এদিকে রাজ্যের বাজারগুলোতে পেঁয়াজের দাম আকাশছোঁয়া। বসিরহাট, বারাসাত, কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ৪৫ টাকা থেকে ৫০ টাকা প্রতি কেজিতে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। আর ভিন রাজ্য থেকে আসা ট্রাকচালক প্রেমজিত ঠাকুর ও সুবিরকুমার বলেন, পেঁয়াজে পচন শুরু হয়েছে। দিনে দিনে ক্ষতি হচ্ছে আমাদের জল ও ভাত খাওয়ার পয়সা ফুরিয়ে গেছে কী করব বুঝে উঠতে পারছি না। আরেকদিকে বসিরহাট ঘোজাডাঙ্গা সীমান্তে পেঁয়াজ ট্রাকে পড়ে রয়েছে সেগুলো পচন শুরু হয়েছে। সব মিলিয়ে কেন্দ্র সরকার পেঁয়াজের যোগান ঠিক রাখতে দাম কমানোর জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। ব্যবসায়ী মিহির ঘোষ বলেন  কেন্দ্র সরকার পেঁয়াজের জোগান রাখতে যে হঠকারিতা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কিন্তু বাস্তব ছবিটা অন্যরকম। একদিকে রফতানি বন্ধ অন্যদিকে, পেঁয়াজ নষ্ট।  সব মিলিয়ে উভয় সংকটে ব্যবসায়ী থেকে চালক ও শ্রমিকরা।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close