fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অনলাইনে জরুরী কাজের পরামর্শ, দুর্গাপুর মহকুমা শাসক দফতরে করোনার থাবা

সোমবার পর্যন্ত কাজকর্ম বন্ধ, শুরু হল স্যানিটাইজেশন

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: করোনার থাবা এবার দুর্গাপুর মহকুমাশাসক দফতরে। আক্রান্ত হলেন দফতরের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। শুক্রবার রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে মহকুমাশাসক দফতর ছাড়াও গোটা শহরে। তাড়িঘড়ি দফতরের সমস্ত কাজ বন্ধ করে আপাতত ৪ দিনের জন্য কাজকর্ম স্থগিত রাখার বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। আক্রান্ত ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের সংস্পর্শে আসা সমস্ত আধিকারিক, সহ কর্মীদের চিহ্নিত করে লালারস পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। এবং ৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়। গোটা মহকুমাশাসক দফতর স্যানিটাইজেশন করা হয়।
মহকুমা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে,, করোনা আক্রান্ত ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট তিনি কালেক্টর পদেও নিযুক্ত রয়েছেন। লকডাউন চলাকালীন দুর্গাপুরের কোয়ারেন্টাইন সেন্টার সহ পরিযায়ী শ্রমিকদের পরিষেবায় দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন আক্রান্ত ওই ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। গত ৬ দিন ধরে তিনি শারীরিক ভাবে অসুস্থ ছিলেন। এবং দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে  তাঁর লালারস পরীক্ষা করা হয়। শুক্রবার কোভিড-১৯ পজিটিভ আসে। রিপোর্ট পজেটিভ আসতেই,  তাঁকে কাঁকসার করোনা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।
এদিকে দফতরে গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কায় তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেওয়া হয়। খবর চাউর হতেই মহকুমাশাসক দফতর ও মহকুমা আদালত ভবনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ওই ভবনে মহকুমা আদালত ছাড়াও মোটরভেহিকেলস, খাদ্য দফতর, ভোটার কার্ডের সংশোধনকারী দফতর, ক্রেতা সুরক্ষা দফতর, পোষ্ট অফিস সহ একাধিক দফতর রয়েছে। করোনা মোকাবিলায় মোটরভেহিকেলস, খাদ্য গণবন্টন, ভোটার কার্ডের সংশোধনকারী দফতরের আধিকার ও কর্মীরা মহকুমা প্রশাসনের সঙ্গে এক জোট হয়ে কাজে যুক্ত ছিলেন। মহকুমাশাসকের দফতর সহ ওই ৪ টি দফতরের মোট ৪০ জনের লালরস পরীক্ষা করা হয় এদিন। লকডাউনে পরিষেবা দিতে এসডিএম-এর দফতর খোলা থাকলেও আনলক-১ শুরু হতেই একের পর এক ওই ভবনে অবস্থিত সরকারি দফতর গুলিতে কাজ শুরু হয়। আদালত সহ বিভিন্ন দফতর প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ তাঁদের কাজের জন্য আসা শুরু করেন। ওই ভবনটিতে একাধিক সরকারি দফতর থাকায় সরকারি কাজে আসা মানুষের জমায়েত হচ্ছিল।এদিন সংক্রমণ ধরা পড়ায় সমস্ত দফতর গুলি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় মহকুমাশাসক। যদিও এদিন আদালতের কাজ চলে।
দুর্গাপুর বার অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে অনুপম বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “শনিবার ও রবিবার আদালত এমনিতেই বন্ধ থাকবে। আদালত বন্ধ রাখা হবে কিনা সোমবার বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” দুর্গাপুর মহকুমাশাসক অনির্বাণ কোলে বলেন,” ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট যিনি আক্রান্ত হয়েছেন তাঁর মধ্যে প্রাথমিকভাবে জ্বর ও নিউমোনিয়ার উপসর্গ ছিল। বৃহস্পতিবার তিনি একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। সেখানে তাঁর করোনা রিপোর্ট পডিটিভ আসে। সোমবার পর্যন্ত দফতরের বন্ধ থাকবে বিজ্ঞপ্তি জারি করে সাধারণ মানুষকে জানানো হয়েছে। জরুরি কাজগুলির ক্ষেত্রে অনলাইন পরিষেবা দেওয়া হবে। এই ভবনের সঙ্গে আদালত সহ একাধিক দফতর রয়েছে সেগুলিও বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।”

Related Articles

Back to top button
Close