fbpx
অন্যান্যঅফবিটবিনোদনহেডলাইন

আমাদেরই হেমন্ত – শতবর্ষে শত প্রণাম

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: গত ১৬ সেপ্টেম্বর শেষ হল হেমন্ত মুখোপাধ্যায় স্মরণ কমিটি আয়োজিত ‘আমাদেরই হেমন্ত’ শীর্ষক অভিনব অনুষ্ঠান। করোনার বিপর্যয়ে পরিকল্পিত সারা বছরের অনুষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় হেমন্ত মুখোপাধ্যায় স্মরণ কমিটি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী Hemanta Mukhopadhyay Smaran Committe ইউটিউব চ্যানেলে এই প্রবাদপ্রতিম শিল্পীর প্রতি কথায় গানে শ্রদ্ধা জানালেন দেশ-বিদেশের ১০০ জন বিশিষ্ট জন। ১৬ই জুন শিল্পীর জন্মদিন থেকে শুরু করে ১৬ সেপ্টেম্বর, এই চারমাসে ৭ ঘণ্টা ৩৭ মিনিটের অনুষ্ঠান শেষ করলেন, যা সারা পৃথিবীর হেমন্ত অনুরাগীদের কাছে আজ কেবল সমাদৃতই নয় ভাবীকালের কাছে অনেক অজানা কথার অমূল্য দলিল।

দুই কিংবদন্তী সলিল চৌধুরী ও হেমন্ত মুখোপাধ্যায়।

১৬ জুন শিল্পীর জন্মদিনে এই অনুষ্ঠানের শুভসূচনা হয় হেমন্ত মুখোপাধ্যায় স্মরণ কমিটির সভাপতি প্রাক্তন নগরপাল তুষার তালুকদারের স্বাগতভাষণ দিয়ে। হেমন্ত মুখোপাধ্যায় স্মরণ কমিটির সম্পাদক সঙ্গীতশিল্পী সৌম্যেন অধিকারী পরিকল্পনা ও বিন্যাসে কথায় গানে ২৬টি এপিসোডে ক্রমান্বয়ে হেমন্ত প্রণাম জানিয়েছেন বুদ্ধিজীবী, সঙ্গীতশিল্পী, সুরকার, যন্ত্রসংগীত শিল্পী, বাচিক শিল্পী ,চিত্রপরিচালক, সাহিত্যিকি, হেমন্ত সান্নিধ্য ধন্য অসংখ্য দেশ- বিদেশের গুণীজন এবং এই প্রজন্মের বেশ কিছু সংগীতশিল্পী। প্রাককথনে বিশিষ্ট বাচিকশিল্পী দেবাশিস বসুর কণ্ঠে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের আত্মজীবনী ‘আনন্দধারা’ এবং ‘আমার গানের স্বরলিপি’র অংশ বিশেষের পাঠ পর্বগুলিতে বিশেষ মাত্রা যোগ করে।

পারিবারিক ভাবে শ্রদ্ধা জানান হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের জামাই সুরকার গৌতম মুখোপাধ্যায়, ছোটভাই সুরকার অমল মুখোপাধ্যায়ের স্ত্রী শুভ্রা মুখোপাধ্যায়, ভাইঝি বিশিষ্ট রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী সুমিত্রা মুখোপাধ্যায়, , অমল কন্যা পারমিতা ও মধুমিতা। অমল মুখোপাধ্যায়ের নাতি, এই প্রজন্মের সৌম্যদীপ চক্রবর্তী প্রণাম জানায় তাঁর মেজদাদুর গাওয়া গান গেয়ে।

রেকর্ডিং-এ কিশোর কুমার ও হেমন্ত মুখোপাধ্যায়।

হেমন্তের হারিয়ে যাওয়াদিনগুলি চোখের সামনে উজ্জ্বল হয়ে উঠেছে যাঁদের স্মৃতিচারণে তাঁরা হলেন পবিত্র সরকার (ভাষাবিদ), শঙ্করলাল ভট্টাচার্য (লেখক), যোগেশ দত্ত (মুকাভিনয় শিল্পী), মিল্টু ঘোষ (গীতিকার), সর্বাণী মুখোপাধ্যায় ( সাহিত্যিক আশুতোষ মুখোপাধ্যায়ের কন্যা), অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় (চিত্র পরিচালক অরবিন্দ মুখোপাধ্যায়ের পুত্র), গৌতম দে (অধিকর্তা- আই.সি.সি.আর), মুম্বাই থেকে ইন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় ( প্রখ্যাত তবলা বাদক), অরিজিৎ মৈত্র ( প্রখ্যাত গীতিকার অমিয় বাগচীর নাতি)। সুরকার প্রবীর মুখোপাধ্যায়, অসীমা মুখোপাধ্যায়, কল্যাণ সেনবরাট, প্রশান্ত ভট্টাচার্য্, শ্যামল বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্মৃতিচারণে উঠে এসেছে এই মহানশিল্পীর সঙ্গে তাদের নানান ব্যক্তিগত অনুভূতির কথা।

কথায়-গানে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বাংলাগানের স্বর্ণযুগের শিল্পী দীপঙ্কর চট্টোপাধ্যায়, মীনা মুখোপাধ্যায়, শ্রাবন্তী মজুমদার, সুমিত রায় গৌতম মিত্র, সুজাতা সরকার, শক্তিব্রত দাস, জয়ন্তী সেন, ভাস্বতী মুখোপাধ্যায়। সেই সঙ্গে এই প্রজন্মের জনপ্রিয় শিল্পীরাও গেয়েছেন হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের সুরারোপিত অথবা গাওয়া গান। শিল্পীরা যথাক্রমে পল্লব ঘোষ, শুভঙ্কর ভাস্কর, শান্তনু ভট্টাচার্য, মহাশ্বেতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রূপরেখা চট্টোপাধ্যায়, রাজ্যশ্রী বন্দ্যোপাধ্যায়, অমিত রায়, দেবমাল্য চট্টোপাধ্যায়, বিমল দে, ভাস্কর ঠাকুর, রুমা মুখোপাধ্যায়, দেবারতি চক্রবর্তী, মানসী চট্টোপাধ্যায়, অন্বেষা গাঙ্গুলী মান্না, দেবলীনা দত্ত, সংযুক্তা মুখোপাধ্যায়, সুনীতা বিশ্বাস, সোনালী রায়, শর্মিষ্ঠা চ্যাটার্জি, মানসী সেন, শ্রাবণী মুখার্জি, স্বাতী চক্রবর্তী, উজ্জ্বল মুখোপাধ্যায়, দীপ্তি ভট্টাচার্য্য চন্দ্র, শিশুশিল্পী সঞ্চারী দত্ত এবং হেমন্ত মুখোপাধ্যায় স্মরণ কমিটির সম্পাদক সৌম্যেন অধিকারী। দুটিপর্বে ডা. তাপস রায়চৌধুরী (হার্ট সার্জেন) ও ডা. অমিতাভ চন্দ (নিউরো সার্জেন) দুই বিশিষ্ট চিকিৎসকের গাওয়া গানে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন এক ব্যতিক্রমী প্রয়াস।

স্টুডিওতে বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়, লতা মঙ্গেশকর ও হেমন্ত

আরও পড়ুন:যেন ভুলে না যাই: নোয়াখালি

প্রখ্যাত যন্ত্রীরাও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন হেমন্তগীতি বাজিয়ে শিল্পী তালিকায় ছিলেন প্রখ্যাত যন্ত্রী প্রতাপ রায় , স্বপন সেন, স্বপন চট্টোপাধ্যায়, মানব মুখোপাধ্যায়, অনুপম দত্ত যারা দীর্ঘদিন ধরে এই প্রবাদপ্রতিম শিল্পীর সঙ্গে রেকর্ডিং ও অনুষ্ঠানে বাজিয়েছেন। তেমনি এই প্রজন্মের যন্ত্রী সূর্য্যকান্ত নন্দী, বৈশালী নন্দী, প্রসেনজিৎ সেনগুপ্ত, নীলোৎপল চক্রবর্তী, সৌমিত্র ঘটক , মনোজ বড়ুয়ার (অসম) পরিবেশনে বেজে উঠেছে তাঁর সুরের মূর্ছনা। হেমন্তের স্মরণে কবিতা পাঠ করেছেন বিশিষ্ট বাচিক শিল্পীরাও, যথাক্রমে প্রবীর ব্রহ্মচারী, দীপঙ্কর সেন, শাশ্বতী গুহ।

কেবল দেশেই নয় প্রবাসীরাও এই অনুষ্ঠানে নানা পর্বে অংশ নিয়েছেন, তাদের কথায় ধরা পড়েছে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের সম্বন্ধে নানান অজানা তথ্য। লন্ডন প্রবাসী অনুরাধা পাল চৌধুরী সাক্ষাৎকারে জানা গেছে তরুণ মজুমদার পরিচালিত ‘আলোর পিপাসা’ ছবিতে তাঁর সঙ্গে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের মেঘদূত কাব্যগ্রন্থের সংস্কৃত শ্লোকগুলি রেকর্ডিং-এর গল্প। ইংল্যান্ডের হিমাদ্রি লাহিড়ী, ডা. সুনীত ঘটক, সুস্মিতা ভট্টাচার্য্ জানিয়েছেন ব্যক্তিগত নানান দুর্লভ ঘটনা। এছাড়া ইংল্যান্ডের জনপ্রিয় শিল্পী চিরঞ্জীব চক্রবর্তী, সুনয়ন চৌধুরী, রাশিদা খান বানু, ঋত্বিক রায়চৌধুরী গান গেয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন,কবিতা পড়েছেন নাট্যকার অধ্যাপক ড.আনোয়ারুল হক। আমেরিকা থেকে অঞ্জন রায়, আরতি ঠাকুর স্মৃতিচারণ করেছেন। এম.এ শোয়েব গেয়েছেন তাঁর গাওয়া গান। হল্যান্ডের মৌসুমী ওবেরয় শুনিয়েছেন হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের সুরে গান।

প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশেই হেমন্ত মুখোপাধ্যায় শেষ সফর করেন ১৯৮৯ সালে চিরবিদায় নেবার কদিন আগে। বাংলাদেশে তাঁর গান আজও সমান জনপ্রিয়। বাংলাদেশ থেকে কথায়-গানে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন লোকসংগীত সম্রাট আব্বাস উদ্দিনের নাতনি ড. নাশিদ কামাল, জনপ্রিয় শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ, গায়ক সুজিত মোস্তফা, তার পিতা গীতিকার-অধ্যাপক আবুহেনা মোস্তাফা কামাল, যিনি হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের জীবনের শেষ সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন বাংলাদেশ টেলিভিশনের জন্য। এই প্রজন্মের বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী সমরজিৎ রায়, চম্পা বণিক ও মিতু কর্মকার, সুরের মূর্ছনায় মোঃ নাসির উদ্দীন এবং কবিতায় পাঠে কবি বিধান চন্দ্র পাল।

ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও অন্যান্যদের সঙ্গে শিল্পী হেমন্ত।

আরও পড়ুন:সমস্ত সরকারি মাদ্রাসা বন্ধ করার ঘোষণা করলেন রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রী

এছাড়াও রয়েছে শিল্পীর স্মরণে ২০২০ বর্ষব্যাপী নানা অনুষ্ঠান। শতবর্ষ স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান( ‘তোমার আলোয়’ কথায় গানে হেমন্ত স্মরণ), শিল্পী, যন্ত্রী, কলাকুশলীদের প্রতি ‘হেমন্ত স্মৃতি স্মারকসম্মান’ প্রদান ,অপ্রকাশিত লাইভ গানের সিডি প্রকাশ ,অপ্রকাশিত ছবির বই প্রকাশ, স্থিরচিত্র প্রদর্শনী, তথ্যচিত্র প্রদর্শন, হেমন্ত বিষয়ক বক্তৃতামালা ও সেমিনার, নবীন প্রতিভা অন্বেষণে ‘হেমন্ত স্মৃতি সঙ্গীত প্রতিযোগিতা’, আবক্ষ মূর্তি প্রতিষ্ঠা, হেমন্ত সংগ্রহশালা নির্মাণ ইত্যাদি।

Related Articles

Back to top button
Close