fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

ধর্ষকদের ওপর কেমিক্যাল ব্যবহার করে নপুংসক বানিয়ে দিন, দাবি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকদিন আগেই পাকিস্তানের লাহোর হাইওয়ের উপরে ফ্রান্সের এক যুবতীকে গণধর্ষণ করে একদল দুষ্কৃতী। এ বিষয়ে পুলিশের কাছে এই বিষয়ে অভিযোগ জানাতে গেলে তারা নির্যাতিতাকেই এর জন্য দায়ী করে। এদিকে এই ঘটনার খবর প্রকাশ্যে আসতেই ধর্ষকদের শাস্তির সাবিতে উত্তাল হয়ে ওঠে ইমরান খানে দেশ। রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখান বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের সদস্যরা। ইতিমধ্যে দুই ধর্ষককে গ্রেপ্তারও করেছে পাকিস্তানের পুলিশ। এই নিয়ে টানাপোড়েনের মধ্যেই ধর্ষকদের প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়ার অথবা কেমিক্যাল ব্যবহার করে তাদের নপুংসক বানানোর প্রস্তাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

এক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে ইমরান খান বলেন, ‘এই ধরনের জঘন্য যৌন অপরাধগুলির ক্ষেত্রে দোষী সাব্যস্তদের প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়া উচিত। কিন্তু, এই ধরনের পদক্ষেপ নিলে তা অন্য দেশগুলির সঙ্গে থাকা বাণিজ্যিক সম্পর্কে প্রভাব ফেলতে পারে। পড়তে হতে আন্তর্জাতিক মহলের ক্ষোভের মুখেও। কারণ, ইউরোপীয় ইউনিয়নের মতো আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলি অনেকেই মৃত্যুদণ্ডের বিরোধী। এদিকে এরপরই এই ধরনের অপরাধে যুক্ত ধর্ষকদের যৌন ক্ষমতা নষ্ট করার পক্ষে সওয়াল করেন তিনি। বলেন, ‘ আমি মনে করি এই ধরনের অপরাধীদের উপর কেমিক্যাল প্রয়োগ করে তাদের যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে দেওয়া উচিত। বিশ্বের অনেক দেশেই এই শাস্তি দেওয়া হয় বলে আমি পড়েছি।’

আরও পড়ুন: আজ সংসদে ভারত-চিন সীমান্ত বিরোধ নিয়ে বিবৃতি দেবেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং

উল্লেখ্য, গত ১১ সেপ্টেম্বর রাতে দুই সন্তানকে নিয়ে গাড়ি চালিয়ে লাহোর (Lahore) -এর উপর দিয়ে গুজরানওয়ালা প্রদেশে যাচ্ছিলেন ফ্রান্সের ওই যুবতী। লাহোর হাইওয়ে দিয়ে যাওয়ার সময় আচমকা তাঁর গাড়ির তেল ফুরিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে স্বামীকে ফোন করে নিজের বিপদের কথা জানান ওই যুবতী। তারপর স্বামীর পরামর্শ মতো পুলিশকে ফোন করে সাহায্য করার আবেদন জানান। কিন্তু, পুলিশ আসার আগেই সেখানে ১০ থেকে ১৫ জন যুবক এসে হাজির হয়। তারপর গাড়ির জানলার কাঁচ ভেঙে ওই যুবতীকে বাইরে বের করে তাঁর দুই সন্তানের সামনেই একে একে ধর্ষণ করে।

Related Articles

Back to top button
Close