fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মেছোঘেরি দখলকে ঘিরে উত্তপ্ত বসিরহাটের পারঘাটা গ্রাম, জখম ১ সিভিক ভলেন্টিয়ার সহ ৯

শ‍্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: মেছোঘেরি দখলকে কেন্দ্র করে  উত্তপ্ত উওর ২৪ পরগনা জেলার বসিরহাট। রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। ঘটনায় এক সিভিক ভলেন্টিয়ার সহ ৯ জন তৃণমূল কর্মী আহত হয়েছেন। সকলেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ঘটনার সূত্রপাত রবিবার রাত সকাল ১০টা নাগাদ। রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে উওর ২৪ পরগনা জেলার বসিরহাট মহকুমার হাসনাবাদ থানার ভবানীপুর ২নং গ্রাম পঞ্চায়েতের পারঘাটা গ্রামে। জানা গিয়েছে,  রবিবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ তৃণমূল নেতা  হিমাংশু মন্ডল, বিশ্বজিৎ প্রধান ও অজয় প্রধান সহ তৃণমূল কর্মীরা মেছোঘেরিতে প্রতিদিনকার মত মাছ ধরতে গেলে হঠাৎই বিজেপি নেতা অবদিশ রায় ও অরণ্য শেখর ভূঁইয়ার নেতৃত্বে বাগবিতন্ডা শুরু হয়ে বলে অভিযোগ। এরপরেই দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এই ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছেন ৯ জন তৃণমূল কর্মী।

সেই সময়ে দায়িত্বে থাকা সিভিক ভলেন্টিয়ার অরিজিৎ পাত্র বিষয়টি দেখতে গেলে তিনি জখম হন। ভলেন্টিয়ার সহ মোট ১০ জনকে টাকি গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে সিভিক ভলেন্টিয়ার ও কয়েকজন তৃণমূল কর্মীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। এই হামলার পিছনে মেছোঘেরি দখল না পুরনো শত্রুতার জের না ব্যবসায়ী সংক্রান্ত বিবাদ সবটাই তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: ‘২০০১ সালে আমাদের সংসদে কাপুরুষোচিত আক্রমণ আমরা কোনও দিনও ভুলব না’

সিভিক ভলেন্টিয়ার অরিজিৎ পাত্র জানিয়েছেন, “আমাকে খুনের চেষ্টা করেছিল। কোনোরকম ভাবে এই যাত্রায় বেঁচে গেলাম।

” যদিও সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার সভাপতি তারক ঘোষ। তিনি বলেন, “এটি মেছোঘেরি দখলের লড়াই। ঘটনার সঙ্গে বিজেপি-তৃণমূলের কোনও সম্পর্ক নেই। তবে সিভিক ভলেন্টিয়ারের উপর হামলাটা দুঃখজনক ঘটনা।”

 

 

Related Articles

Back to top button
Close